ব্রেকিং:
মতলবে দক্ষতা ও সচেতনতা শীর্ষক সেমিনার শাহরাস্তিতে আইনশৃঙ্খলা কমিটির সভা কচুয়ায় শিক্ষা সফরের দাবিতে শিক্ষার্থীদের ক্লাস বর্জন মেয়র পদে ৩ জনসহ মোট ১০১ প্রার্থীর মনোনয়নপত্র দাখিল শাহরাস্তিতে ডাকাতি মামলায় একজনের মৃত্যুদণ্ড, যাবজ্জীবন ৪ হাজীগঞ্জে চার শতাধিক ছাত্রীর মাঝে স্যানিটারি ন্যাপকিন বিতরণ জুমার দিনে গোসলের গুরুত্ব ও ফজিলত প্রথম আলো-ডেইলি স্টারে ব্রিটিশ হাইকমিশনারের গোপন বৈঠক! প্রধানমন্ত্রীর স্বর্ণ পদক পেয়েছেন ফরক্কাবাদের ইমাম হোসেন হাইমচর জাটকা রক্ষা সংক্রান্ত উপজেলা টাস্কফোর্স কমিটির সভা হাজীগঞ্জ পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হৃদরোগে আক্রান্ত একি দৃশ্য দেখল চাঁদপুরবাসী চাঁদপুরে কিশোর গ্যাংয়ের ১০ এসএসসি পরীক্ষার্থী কারাগারে চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালে ৩০৪ পদের ৫৬টিই শূন্য হাজীগঞ্জে এ্যাম্বুলেন্সের মুখামুখি সংঘর্ষে অটো চালকের মৃত্যু,আহত চাঁদপুরে মুজিববর্ষে ১০ হাজার কিমি নদী ড্রেজিং হবে রাতে বাল্কহেড চলাচল বন্ধে সহযোগিতা চায় চাঁদপুর কোস্টগার্ড নবম শ্রেণি থেকেই বিষয় ভিত্তিক বিভাজন না করার পক্ষে প্রধানমন্ত্রী পেঁয়াজ রফতানির নিষেধাজ্ঞা তুলে নিলো ভারত প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানিয়ে চীনা প্রেসিডেন্টের চিঠি
  • শনিবার   ২৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০ ||

  • ফাল্গুন ১৬ ১৪২৬

  • || ০৫ রজব ১৪৪১

সর্বশেষ:
একবছরে পাঁচগুণ মুনাফা বেড়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের আমাজন বাঁচাতে লিওনার্দোর ৫০ মিলিয়ন ডলারের অনুদান ১৬২৬৩ ডায়াল করলেই মেসেজে প্রেসক্রিপশন পাঠাচ্ছেন ডাক্তার জোরশোরে চলছে রূপপুর পারমাণবিক প্রকল্পের কাজ
১২৫

আবারো ছড়াচ্ছে অ্যানথ্রাক্স, সতর্ক থাকুন আপনিও

দৈনিক চাঁদপুর

প্রকাশিত: ৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯  

অ্যানথ্রাক্স রোগ সম্পর্কে অনেকেই জানেন না। বাংলাদেশের কয়েকটি জেলায় সম্প্রতি অ্যানথ্রাক্স রোগ ছড়িয়ে পড়ার ঘটনায় সেসব এলাকার মানুষের মধ্যে উদ্বেগ তৈরি হয়েছে। যেসব এলাকায় গবাদি পশু পালন করা হয় সেসব এলাকাতেই সাধারণত অ্যানথ্রাক্সের প্রকোপ বেশি দেখা যায়। তাই এই সম্পর্কে জানা ও সতর্ক হওয়া জরুরি।

মানুষের অ্যানথ্রাক্স মূলত দুই ধরনের হয়ে থাকে- একধরণের অ্যানথ্রাক্স হয় পরিপাকতন্ত্রে, আরেক ধরণের অ্যানথ্রাক্স শরীরের বাইরের অংশে সংক্রমণ ঘটায়।

পরিপাকতন্ত্রে অ্যানথ্রাক্স জীবাণুর সংক্রমণ হলে সাধারণত হালকা জ্বর, মাংসপেশীতে ব্যাথা, গলা ব্যাথার মত উপসর্গ দেখা দিতে পারে। তবে বাংলাদেশে যে অ্যানথ্রাক্স দেখা যায় তা শরীরের বাইরের অংশে প্রভাব ফেলে। এধরণের অ্যানথ্রাক্সে শরীরের বিভিন্ন জায়গায় ফোঁড়া বা গোটা হয়ে থাকে। ফোঁড়া ঠিক হয়ে গেলে হাতে, মুখে বা কাঁধের চামড়ায় দাগ দেখা যেতে পারে।

বাংলাদেশের রোগতত্ব, নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (আইইডিসিআর) পরিচালক মেহেরজাদী সাবরিনা ফ্লোরা জানান, বাংলাদেশে সাধারণত কয়েকটি নির্দিষ্ট এলাকাতেই অ্যানথ্রাক্স হয়ে থাকে। অ্যানথ্রাক্স গরু, ছাগল, মহিষ- এই ধরণের প্রাণীর মধ্যে প্রথম দেখা যায়। এসব প্রাণীর মাধ্যমেই অ্যানথ্রাক্স মানুষের মধ্যে ছড়ায়।

অ্যানথ্রাক্স যেভাবে মানুষের মধ্যে ছড়ায়
মূলত অ্যানথ্রাক্স আক্রান্ত পশুর মাংস কাটার সময় মানুষের মধ্যে অ্যানথ্রাক্স ছড়ানোর সম্ভাবনা সবচেয়ে বেশি থাকে।

মিজ ফ্লোরা বলেন, পশু জবাই করা, সেটির মাংস কাটাকাটি করা এবং মাংস ধোয়া বা রান্নার সময় অনেকক্ষণ মাংস, রক্ত ও হাড্ডির সংস্পর্শে থাকতে হয়। সেসময় আক্রান্ত পশুর রক্তের মাধ্যমে মানুষের মধ্যে ছড়িয়ে পড়তে পারে অ্যানথ্রাক্স। মাংস কাটাকাটির সময় মানুষের শরীরের চামড়ায় কোনরকম ক্ষত থাকলে তার দেহে অ্যানথ্রাক্সের জীবাণু প্রবেশ করার সম্ভাবনা বেশি থাকে বলে জানান তিনি।

আমাদের দেশে পশুর অ্যানথ্রাক্স হলেও অনেকসময় তা জবাই করে মাংস কম দামে বিক্রি করে ফেলা হয়। ঐ মাংস কাটাকাটি করার সময় অ্যানথ্রাক্স আক্রন্ত হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। মিজ. ফ্লোরা নিশ্চিত করেন, পশু থেকে মানুষের মধ্যে অ্যানথ্রাক্স সংক্রমণ হলেও মানুষ থেকে অন্য মানুষের মধ্যে অ্যানথ্রাক্স সংক্রমণ হয় না।

আক্রান্ত পশুর মাংস খেলে কী অ্যানথ্রাক্স হতে পারে?
মিজ. ফ্লোরা বলেন, অ্যানথ্রাক্স আক্রান্ত পশুর মাংস খেয়ে পরিপাকতন্ত্রে অ্যানথ্রাক্স সংক্রমণের সম্ভাবনা থাকলেও বাংলাদেশে সাধারণত যেভাবে মাংস রান্না করে খাওয়া হয় তাতে অ্যানথ্রাক্সের জীবাণু মাংসে টিকে থাকার সম্ভাবনা খুবই কম।

বিদেশে 'হাফ ডান' অবস্থায় মাংস রান্না করে খাওয়া হয়, সেই পদ্ধতিতে রান্না করলে মাংসে জীবাণু থাকার সম্ভাবনা থাকে। কিন্তু আমাদের দেশে যেভাবে মাংস রান্না করা হয়, ঐ পদ্ধতিতে রান্না করলে অ্যানথ্রাক্সের জীবাণু থাকার সম্ভাবনা খুব কম থাকে। তবে, অ্যানথ্রাক্স আক্রান্ত পশুর মাংস না খাওয়াই সবচেয়ে নিরাপদ বলে মন্তব্য করেন মিজ. ফ্লোরা।

অ্যানথ্রাক্স প্রতিরোধে করণীয়
অ্যানথ্রাক্স প্রতিরোধে মূলত দুই ধরণের পদক্ষেপ নেয়ার কথা জানান মিজ. ফ্লোরা।

প্রথমত, যাদের গরু, মহিষ, ছাগলের মত গবাদি পশু রয়েছে, তারা যেন তাদের পশুকে নিয়মিত অ্যানথ্রাক্সের টীকা দেন তা নিশ্চিত করতে হবে।

আর পশুর যদি অ্যানথ্রাক্স হয়েই যায়, সেক্ষেত্রে পশুকে দ্রুত মাটির নীচে পুঁতে ফেলা প্রয়োজন।

দৈনিক চাঁদপুর
দৈনিক চাঁদপুর
বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর