ব্রেকিং:
পুলিশের অভিযানে বিপুল পরিমান ইলিশ জব্দ অভিনব কায়দায় ২ দিনে ৪টি চুরি মা ইলিশ ধরায় ১৩ জেলেকে কঠোর শাস্তি কোয়ার্টার ফাইনালে চাঁদপুর হাজীগঞ্জ-শাহরাস্তিতে বন্ধ হচ্ছে ভিক্ষাবৃত্তি আশ্রয়কেন্দ্র উদ্বোধন নতুন মোটরসাইকেল কিনে বাড়ি ফেরা হলো না ‘ডিজিটাল পদ্ধতিতে পরিচালিত হচ্ছে বাংলাদেশ’ জেএসসি-জেডিসি পরীক্ষা: ২২ দিন কোচিং সেন্টার বন্ধ বুয়েটে ভর্তি পরীক্ষা আজ সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে নজরদারি বাড়ানো হবে: শিক্ষামন্ত্রী দক্ষিণ এশিয়ায় দ্রুত বর্ধনশীল অর্থনীতিতে দ্বিতীয় বাংলাদেশ ২৪ উপজেলা-ইউপি-পৌরসভার ভোট আজ নভেম্বরের মধ্যে সকল উপজেলা কমিটির সম্মেলন শেষ হবে পূজা মণ্ডপে ছিলো ব্যতিক্রমধর্মী কার্যক্রম প্রভাবশালীদের সরকারি খাল দখল ইউএনও’র সাহসিকতায় রক্ষা পেল কিশোরী সংগঠন শক্তিশালী করতে তৃণমূলের প্রতি বিশেষ দিক-নির্দেশনা মসজিদে ভয়াবহ হামলা, নিহত ১৬ কম দামী গ্যালাক্সি নোট ১০ আনছে স্যামসাং

মঙ্গলবার   ১৫ অক্টোবর ২০১৯   আশ্বিন ২৯ ১৪২৬   ১৫ সফর ১৪৪১

দৈনিক চাঁদপুর
সর্বশেষ:
একবছরে পাঁচগুণ মুনাফা বেড়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের আমাজন বাঁচাতে লিওনার্দোর ৫০ মিলিয়ন ডলারের অনুদান রাজধানীতে চার জঙ্গি আটক ১৬২৬৩ ডায়াল করলেই মেসেজে প্রেসক্রিপশন পাঠাচ্ছেন ডাক্তার জোরশোরে চলছে রূপপুর পারমাণবিক প্রকল্পের কাজ
৪৩০

কারেন্ট জালে বিলুপ্ত ইলিশ

প্রকাশিত: ৩ অক্টোবর ২০১৯  

জাটকার প্রধানতম শত্রু কারেন্ট জাল। ইলিশকে জাদুঘরে পাঠাতে এই কারেন্ট জালই যথেষ্ট। এর দ্বারা ইলিশের বংশ নির্বংশ করা সম্ভব। নামে যেমন কারেন্ট, কাজেও তেমনি। তার কাজ যেনো কারেন্টের মতো। কোনো জাটকা একবার এই জালের সাথে লাগলেই চলে, বাঁচার আর উপায় নেই, তাকে জালে আটকা পড়তেই হবে। এভাবেই প্রতি বছর কারেন্ট জাল দিয়ে টনে টনে জাটকা নিধন করা হয়। আর এ সুযোগটি জেলেরা পাচ্ছে কারেন্ট জাল সহজলভ্য হওয়াতে। কারেন্ট জালের উৎপাদন, বিপণন সবকিছুই স্বাভাবিক রেখে সরকারের জাটকা রক্ষা কর্মসূচি ঘোষণা যে কতটা আত্মঘাতী তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না। এটা নিজের সাথে নিজের প্রতারণারই শামিল।

 


চাঁদপুর জেলা মৎস্য অফিস সূত্রে জানা গেছে, কারেন্ট জাল উৎপাদন, বিপণন, ব্যবহার সবকিছু সরকারিভাবে নিষিদ্ধ। অথচ সবকিছুই ঠিক আছে। অর্থাৎ কারেন্ট জাল উৎপাদনও হচ্ছে শতভাগ, আবার বিপণন ও ব্যবহারও হচ্ছে পুরোদমে। বাস্তবে সরকারি নিষেধাজ্ঞা কাগজে কলমে। একটি সূত্র থেকে জানা গেছে, কারেন্ট জাল উৎপাদন ও বিপণন সংক্রান্ত হাইকোর্টে রিট হয়েছে ৫৭টি। সব রিট খারিজ হয়ে সরকারের পক্ষে রায় হয়েছে। তারপরও অদৃশ্য শক্তির ইশারায় হাইকোর্টের রায় কিংবা সরকারের সিদ্ধান্তের প্রতি কোনো তোয়াক্কা নেই জাটকার খুনিদের। তারা কারেন্ট জাল উৎপাদন, বিপণন সবকিছুই করছে। অথচ সরকারের সংশ্লিষ্ট দপ্তরের সেদিকে কোনো নজর নেই। আবার এটিকে ভিন্নভাবে বললে 'ম্যানেজ' হওয়ার বিষয়টি চলে আসে। এখানেও সেই পুরানো কথা এসে যায় 'সর্ষের মধ্যে ভূত'।

 


জানা গেছে, পুরো মুন্সীগঞ্জ জেলা জুড়ে রয়েছে কারেন্ট জাল উৎপাদনের বহু কারখানা। মুন্সীগঞ্জে মুক্তারপুর নামে একটি উপজেলা রয়েছে, এখানকার প্রতিটি গ্রামে রয়েছে ছোট-বড় অনেক কারেন্ট জাল তৈরির কারখানা। এই জায়গাগুলোতে একবারও প্রশাসনের কোনো অভিযান হয়েছে বলে শোনা যায়নি। সেখান থেকে কারেন্ট জালের পাইকারী ক্রেতারা নির্বিঘ্নে কিনে আনছে, নিজ ব্যবসা কেন্দ্র্রে রেখে জেলেদের কাছে বিক্রিও করছে কোনো রকমের ঝামেলা ছাড়া। উৎপাদন থেকে বিপণন পর্যন্ত কোথাও কোনো বাধা-বিপত্তি নেই। অথচ ব্যবহারকারী গরিব জেলের উপর চলে আইনের খড়গ! তবে মাঝেমধ্যে খুচরা বিক্রেতাদের দোকানে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে অভিযান চালাতে দেখা যায়। যেমন এখন পুরাণবাজারের প্রায় প্রতিটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে কারেন্ট জালের স্তূপ পাওয়া যাবে। আবার অনেকের বসতঘরেও কারেন্ট জালের গোডাউন পাওয়া যাবে। অথচ প্রশাসন ওইসব জায়গায় অভিযান চালাচ্ছে না। সেখান থেকে ক্রয় করে জেলেরা যখন নদীতে নামবে, তখন প্রশাসনের অভিযানে আটক হবে জেলেদের জাল। প্রশ্ন হচ্ছে-এটি কেমন দ্বিমুখী আচরণ প্রশাসনের? বেচারা জেলে সবদিক দিয়েই মার খাচ্ছে। অথচ যারা ব্যবসা করার তারা ঠিকই করে যাচ্ছে।

 


তাই মৎস্য বিভাগ, জেলে, মৎস্য ব্যবসায়ী, সাধারণ জনগণ সকলের কথা একটাই-কারেন্ট জাল উৎপাদন বন্ধ না করে জাটকা রক্ষা করা কোনোভাবেই সম্ভব নয়। সরকারকে আগে সে জায়গায় হাত দিতে হবে। সমস্যার মূলে না গিয়ে প্রতি বছর জাটকা রক্ষা ও মা ইলিশ নিধন নিষিদ্ধ কর্মসূচির নামে সরকারের শত শত কোটি টাকা জলে যাচ্ছে এবং লুটপাটও হচ্ছে। আর যদি কারেন্ট জালের উৎপাদন শূন্যের কোটায় নিয়ে আসা যায়, তাহলে কোনো অভিযানও লাগবে না।

দৈনিক চাঁদপুর
দৈনিক চাঁদপুর
এই বিভাগের আরো খবর