ব্রেকিং:
চাঁদপুরের ৯ জনসহ রাজাকারের তালিকা প্রকাশ বাস কেড়ে নিলো বৃদ্ধের প্রাণ মতলবে অগ্নিকাণ্ডে ৩০ লক্ষাধিক টাকার ক্ষয়ক্ষতি নারায়ণপুর ডিগ্রি কলেজে শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস পালিত বিজয় দিবস উপলক্ষে চাঁদপুর জেলা ক্রীড়া সংস্থার বিশেষ আয়োজন চাঁদপুরে সিজদাহ্রত অবস্থায় এক ব্যক্তির মৃত্যু কোস্টগার্ডের অভিযানে ৭০০ কেজি জাটকা জব্দ চাঁদপুর সদরে মর্মান্তিক সড়ক দুর্ঘটনা মুক্তিযুদ্ধে সর্বাত্মক সঙ্গী সোভিয়েত ইউনিয়ন নাসিরকোটে আজ মুক্তিযুদ্ধের বিজয় মেলা উদ্বোধন শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবসে চাঁদপুর লেখক ফোরামের আলোচনা সভা স্বেচ্ছাসেবক ও শৃঙ্খলা উপ-কমিটির সভা আজ রাজাকারদের তালিকা প্রকাশ হবে আজ বুদ্ধিজীবী এবি তালুকদারের নামে সড়ক চায় পরিবার বিজয়ের মাসে পতাকা ফেরি মতলব উত্তর থানার ওসির বিশেষ উদ্যোগ ফরিদগঞ্জে টুম্পা হত্যার বিচার চায় পরিবার চাঁদপুর আওয়ামী লীগের উদ্যোগে শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবসের আলোচনা সভা শিশু মৃত্যু ৬৩ শতাংশ কমিয়েছে বাংলাদেশ শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস আজ

রোববার   ১৫ ডিসেম্বর ২০১৯   পৌষ ১ ১৪২৬   ১৭ রবিউস সানি ১৪৪১

দৈনিক চাঁদপুর
সর্বশেষ:
একবছরে পাঁচগুণ মুনাফা বেড়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের আমাজন বাঁচাতে লিওনার্দোর ৫০ মিলিয়ন ডলারের অনুদান ১৬২৬৩ ডায়াল করলেই মেসেজে প্রেসক্রিপশন পাঠাচ্ছেন ডাক্তার জোরশোরে চলছে রূপপুর পারমাণবিক প্রকল্পের কাজ
৯৩

গরুর হাটেই যেভাবে চিনবেন কৃত্রিম উপায়ে মোটাতাজা করা গরু

প্রকাশিত: ৬ আগস্ট ২০১৯  

ঈদুল আজহা মানেই হাটে গিয়ে গরু ছাগল কেনার পাল্লা। আর তাইতো ঈদের সপ্তাহখানেক আগ থেকেই দেশের বিভিন্ন প্রান্তে জমে ওঠে গবাদিপশুর হাট। ঈদুল আজহার বাকি আর মাত্র ক’দিন। এসময় সবাই হাটে গিয়ে গরু কেনার সিদ্ধান্ত নিচ্ছেন নিশ্চয়ই! 
তবে কোরবানির পশু কেনার সময় দুশ্চিন্তাগ্রস্থ থাকেন অনেকেই! সুস্থ পশুটি কিনতে পারবেন তো এই ভেবে। কারণ কোরবানির ঈদ আসলেই অসাধু ব্যবসায়ীরা গবাদিপশু কৃত্রিম উপায়ে মোটাতাজা করতে ব্যস্ত হয়ে পড়েন। কিছু অসাধু ব্যবসায়ীর এ ধরনের চিন্তার কারণে ক্ষতির সম্মুখীন হতে হয় সাধারণ মানুষের। বেশি দামে পশু বিক্রি করতে নানা ধরনের পন্থা অবলম্বন করেন তারা। হাটে দেখতে আকর্ষণীয় এসব গরুর মূল্য হাঁকা হয় লাখ লাখ।

জানা গেছে, বিভিন্ন ধরনের ওষুধ, ইনজেকশন ও রাসায়নিক দ্রব্য ব্যবহার করে এসব পশুকে মোটাতাজা করে থাকেন তারা, যা পুরোপুরি স্বাস্থ্যের জন ভয়ানক ক্ষতিকর। বিশেষজ্ঞদের মতে, কৃত্রিম উপায়ে মোটাতাজাকরণ গরুর মাংস খেলে মানুষের শরীরে পানি জমে যাওয়া, রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা কমে যাওয়া, মূত্রনালি ও যকৃতের বিভিন্ন রকম সমস্যা দেখা দিতে পারে। তাই এসব পশু কেনা থেকে অবশ্যই বিরত থাকতে হবে।


 
তাই স্বাস্থ্যবতী গাই বা স্বাস্থ্যবান ষাঁড় দেখলেই তা কোনোরকম পরীক্ষা না করে কেনা উচিত নয়। তবে বেশ কয়েকটি লক্ষণ রয়েছে এসব গরুর। হাটে দাঁড়িয়ে চেনা যাবে কোন পশুটিকে কৃত্রিম উপায়ে ইনজেকশন ও রাসায়নিক দ্রব্য ব্যবহার করে মোটাতাজা করা হয়েছে। তবে জেনে নিন যেভাবে চিনবেন ইনজেকশন দেয়া কোরবানির পশু-

আঙুলের চাপ

কৃত্রিম উপায়ে মোটাতাজাকরণ গরুর গায়ে আঙুল দিয়ে চাপ দিলে ওই স্থানের মাংস স্বাভাবিক হতে অনেক সময় লাগে। কিন্তু স্বাভাবিকভাবে মোটা গবাদিপশুর ক্ষেত্রে দ্রুতই মাংস স্বাভাবিক হয়।

দ্রুত শ্বাস-প্রশ্বাস গ্রহণ

কৃত্রিম উপায়ে মোটাতাজাকরণ গরু দ্রুত শ্বাস-প্রশ্বাস গ্রহণ করে। একটু হাঁটলেই হাঁপায়। খুবই ক্লান্ত দেখায়। ইনজেকশন দেয়া গরুর রানের মাংস নরম হয়। স্বাভাবিকভাবে যেসব গরু মোটা হয় সেগুলোর রানের মাংস শক্ত হয়।

লালা বা ফেনা

যেসব গরুর মুখে কম লালা বা ফেনা থাকে সেই গরু কেনার চেষ্টা করুন। এগুলো কৃত্রিম উপায়ে মোটা করা পশু নয়।

খুব শান্ত

স্টেরয়েড ট্যাবলেট খাওয়ানো বা ইনজেকশন দেয়া গরু হবে খুব শান্ত। ঠিকমতো চলাফেরা করতে পারবে না। পশুর ঊরুতে অনেক মাংস মনে হবে।

শরীরে পানি জমে

অতিরিক্ত হরমোনের কারণে পুরো শরীরে পানি জমে মোটা দেখাবে। আঙুল দিয়ে গরুর শরীরে চাপ দিলে সেখানে দেবে গিয়ে গর্ত হয়ে থাকবে।

খাবার

গরুর মুখের সামনে খাবার ধরলে যদি নিজ থেকে জিহ্বা দিয়ে খাবার টেনে নিয়ে খেতে থাকে তবে বোঝা যাবে গরুটি সুস্থ। যদি অসুস্থ হয়, তবে সে খাবার খেতে চায় না।

নাকের ওপরটা ভেজা

সুস্থ গরুর নাকের ওপরটা ভেজা ভেজা থাকে। সুস্থ গরুর পিঠের কুঁজ মোটা ও টান টান হয়।

পা ও মুখ ফোলা

বিশেষ করে গরুর পা ও মুখ ফোলা, শরীর থলথল করবে, অধিকাংশ সময় গরু ঝিমাবে, সহজে নড়াচড়া করবে না। এসব গরু অসুস্থতার কারণে সব সময় নিরব থাকে। ঠিকমতো চলাফেরা করতে পারে না। খাবারও খেতে চায় না।

হাটে যাওয়ার পর উশকোখুশকো, চামড়ার ওপর দিয়ে হাড় বেরিয়ে পড়া পশু কিনতে চেষ্টা করুন। এগুলো কোনোরকম কৃত্রিম উপায় ছাড়াই বাজারে সরবরাহ করা হয়। চকচক করা গরু বা ছাগলকে দেয়া হয় ইনজেকশন।

দৈনিক চাঁদপুর
দৈনিক চাঁদপুর