ব্রেকিং:
রাতেও ইলিশের পাইকারী বাজার জমজমাট চাঁদপুরে ২ হাজার পিস ইয়াবাসহ ৫ মাদক ব্যবসায়ী আটক গণিতে যে কারণে নোবেল পুরস্কার দেয়া হয় না রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন যেকোনো সময়: পররাষ্ট্র সচিব নেইমারবিহীন পিএসজির হার ৯৯৯ নম্বরে ফোন, উদ্ধার হলেন ২০০ লঞ্চ যাত্রী অস্কারজয়ী রিচার্ড উইলিয়ামস মারা গেছেন স্বাধীনতা বিরোধীরা এখনো ষড়যন্ত্র করছে: আইনমন্ত্রী মার্কিন অনুরোধ প্রত্যাখ্যান করল জিব্রাল্টার সবার স্বার্থ রক্ষা করতে হবে, চামড়া ইস্যুতে শিল্পমন্ত্রী জয়শঙ্করের সফরে গুরুত্ব পাবে যেসব বিষয় বৌভাতের আগেই ধরা খাওয়া সেই ধর্ষক বরের জন্য একদিনের রিমান্ড মঙ্গল গ্রহে শহর তৈরি করতে যেমন খরচ হবে! বন্যাদুর্গতদের পুনর্বাসনে রয়েছে ১২০ কোটি টাকা বরাদ্দ চামড়া: অস্থিতিশীল পরিস্থিতি সমাধানে বিকেলে সচিবালয়ে বৈঠক ঘুষদাতার বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেয়া হবে: প্রধানমন্ত্রী জন্মদিনে প্রকাশ পেল ‘গীটার লিজেন্ড’ এর অপ্রকাশিত গান (ভিডিও) টাইগারদের হেড কোচ হলেন রাসেল ডমিঙ্গো মুক্তিযোদ্ধা আলী ইমাম চৌধুরীর ইন্তেকাল সু-খবর দিলো আবহাওয়া অধিদফতর

সোমবার   ১৯ আগস্ট ২০১৯   ভাদ্র ৪ ১৪২৬   ১৭ জ্বিলহজ্জ ১৪৪০

দৈনিক চাঁদপুর
সর্বশেষ:
ঈদে স্বাস্থ্য বিভাগের সবার ছুটি বাতিলের সিদ্ধান্ত আলোচনার মাধ্যমেই রোহিঙ্গা সমাধান চায় বাংলাদেশ: প্রধানমন্ত্রী বিএনপির ব্যর্থতার দগদগে ঘা রয়েছে: ওবায়দুল কাদের জাল নোট চেনার সহজ উপায় গুজব: নায়িকা শাবনূর ‘মারা’ গেছেন!
৬৩৬

জমজমের পানি পানের বিশেষ মুহূর্তের কথা বলেছেন রাসূলুল্লাহ (সা.)

প্রকাশিত: ১৮ জুলাই ২০১৯  

জমজমের পানি হলো মহান আল্লাহর একান্ত অনুগ্রহ থেকে সৃষ্ট এক অলৌকিক কুয়া। যা তিনি শিশু ইসমাইল (আ.) এর পদতলে পদাঘাতের ফলে দান করেছেন। দুনিয়ার বুকে জমজমের পানি অনেক বরকতময়। যে পানি পান করে দুনিয়ার অসংখ্য মানুষ লাভ করে শান্তি, শারীরিক সক্ষমতা ও বরকত।

রাসূলুল্লাহ (সা.) বলেছেন, ‘ভূপৃষ্ঠের মধ্যে সেরা পানি হলো- জমজমের পানি। এর মধ্যে রয়েছে পুষ্টিকর খাদ্য (উপাদান) এবং রোগ হতে আরোগ্য (লাভের উপাদান)।’ (তাবারানি)অন্য হাদিসে নবী করিম (সা.) বলেছেন, ‘নিশ্চয় এটি বরকতময় (পানি)।’ মুসনাদে আহমাদ, মুসলিম)  
 
হজ ও ওমরায় গুরুত্বপূর্ণ ফজিলত ও বরকতময় একটি কাজ হলো জমজমের পানি পান। এ পানি পানের বিশেষ একটি মুহূর্তের কথা বলেছেন রাসূলুল্লাহ (সা.)।

হজ ও ওমরা পালনকারীরা যখন পবিত্র কাবা শরিফ তাওয়াফ সম্পন্ন করবেন তখন তারা মাকামে ইবরাহিমে দুই রাকাআত নামাজ পড়বেন। তার পরই পান করবেন জমজমের এ বরকতময় পানি। 

এ প্রসঙ্গে রাসূলুল্লাহ (সা.) বলেছেন, ‘তাওয়াফ শেষে দুই রাকাআত নামাজ আদায় করে মাতআফ (তাওয়াফের স্থান) থেকে বেরিয়ে পাশেই জমজম কুপ এলাকায় প্রবেশ করবে এবং সেখানে বিসমিল্লাহ বলে দাঁড়িয়ে জমজমের পানি পান করবে। আর (হাতের কোষে নিয়ে) কিছু পানি মাথায় দেবে।’ (বুখারি-মুসলিম, মিশকাত ও মুসনাদে আহমদ)

রাসূলুল্লাহ (সা.) বলেছেন, ‘এই পানি কোনো রোগ থেকে আরোগ্য লাভের উদ্দেশ্যে পান করলে তোমাকে আল্লাহ আরোগ দান করবেন।’ (দারাকুতনি, মুসতাদরেকে হাকেম, তারগিব)

‘মূলতঃ জমজম হলো আল্লাহর বিশেষ অনুগ্রহে সৃষ্ট এক অলৌকিক কুপ। যা শিশু ইসমাইল ও তার মা হাজেরা জীবন রক্ষায় এবং পরবর্তীতে মক্কার আবাদ ও রাসূলুল্লাহ (সা.) আগমনের স্থান হিসেবে গড়ে তোলার উদ্দেশ্যেই সৃষ্টি হয়েছে।’ (বুখারি ও মুসলিম)

আল্লাহ তায়ালা মুসলিম উম্মাহর সব মক্কা ও মদিনা জিয়ারতকারীকে জমজমের পানি পানের মাধ্যমে হাদিসে ঘোষিত বরকত লাভের তাওফিক দান করুন। আমিন।

দৈনিক চাঁদপুর
দৈনিক চাঁদপুর
এই বিভাগের আরো খবর