ব্রেকিং:
ভুয়া দলিলে দিনমজুরের শেষ সম্বল দখল মতলবে ভয়াবহ অগ্নিকান্ডে ৫টি ঘর পুড়ে ছাই আজ চাঁদপুরবাসীর প্রাণের মেলা মুক্তিযুদ্ধের বিজয়মেলার উদ্বোধন এসএ গেমসে পঞ্চম দিনে বাংলাদেশের অর্জন পাঁচ রুপা চিত্রগ্রাহক মাহফুজুর রহমান খান মারা গেছেন প্রতিবন্ধীদের নিয়ে ‘নেতিবাচক মানসিকতা’ পরিহার করুন: প্রধানমন্ত্রী চাঁদপুরে চাহিদার ৯৪ % বই বিতরণ সম্পন্ন নারী নির্যাতন প্রতিরোধে ফরিদগঞ্জে অরেঞ্জ ক্যাম্পেইন ফরিদগঞ্জে দিন দুপুরে দুর্ধর্ষ ডাকাতি কচুয়ায় পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে অনিয়মের অভিযোগ ফরিদগঞ্জ ও কচুয়া উপজেলা সামলাচ্ছেন স্বামী-স্ত্রী চৌধুরীঘাট এলাকায় সিসি ক্যামেরা স্থাপন হাজীগঞ্জে নিম্মবিত্ত নারীরা জ্বালানীতে ব্যবহার করছে গোবরের লাকড়ি চাঁদপুরে সরকারি হাসপাতালে চিকিৎসকের বিরুদ্ধে অর্থ নেয়ার অভিযোগ ফরিদগঞ্জে গ্রাম আদালতের রিফ্রেশার্স প্রশিক্ষণ শুরু চাঁদপুরে শেখ ফজলুল হক মনির ৮০তম জন্মবার্ষিকী পালিত চাঁদপুর স্টেডিয়ামে শুরু হচ্ছে জেলা প্রশাসক কাপ ফুটবল টুর্নামেন্ট ১২ জন দরিদ্র ও মেধাবী শিক্ষার্থীকে কয়েক লাখ টাকা অনুদান বাবুরহাট বাজার ব্যবস্থাপনা কমিটির শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠিত বাবা-মা ইচ্ছে করে মেয়েকে বাল্যবিবাহ দেন

শুক্রবার   ০৬ ডিসেম্বর ২০১৯   অগ্রাহায়ণ ২২ ১৪২৬   ০৮ রবিউস সানি ১৪৪১

দৈনিক চাঁদপুর
সর্বশেষ:
একবছরে পাঁচগুণ মুনাফা বেড়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের আমাজন বাঁচাতে লিওনার্দোর ৫০ মিলিয়ন ডলারের অনুদান ১৬২৬৩ ডায়াল করলেই মেসেজে প্রেসক্রিপশন পাঠাচ্ছেন ডাক্তার জোরশোরে চলছে রূপপুর পারমাণবিক প্রকল্পের কাজ
৬৯৭

জমজমের পানি পানের বিশেষ মুহূর্তের কথা বলেছেন রাসূলুল্লাহ (সা.)

প্রকাশিত: ১৮ জুলাই ২০১৯  

জমজমের পানি হলো মহান আল্লাহর একান্ত অনুগ্রহ থেকে সৃষ্ট এক অলৌকিক কুয়া। যা তিনি শিশু ইসমাইল (আ.) এর পদতলে পদাঘাতের ফলে দান করেছেন। দুনিয়ার বুকে জমজমের পানি অনেক বরকতময়। যে পানি পান করে দুনিয়ার অসংখ্য মানুষ লাভ করে শান্তি, শারীরিক সক্ষমতা ও বরকত।

রাসূলুল্লাহ (সা.) বলেছেন, ‘ভূপৃষ্ঠের মধ্যে সেরা পানি হলো- জমজমের পানি। এর মধ্যে রয়েছে পুষ্টিকর খাদ্য (উপাদান) এবং রোগ হতে আরোগ্য (লাভের উপাদান)।’ (তাবারানি)অন্য হাদিসে নবী করিম (সা.) বলেছেন, ‘নিশ্চয় এটি বরকতময় (পানি)।’ মুসনাদে আহমাদ, মুসলিম)  
 
হজ ও ওমরায় গুরুত্বপূর্ণ ফজিলত ও বরকতময় একটি কাজ হলো জমজমের পানি পান। এ পানি পানের বিশেষ একটি মুহূর্তের কথা বলেছেন রাসূলুল্লাহ (সা.)।

হজ ও ওমরা পালনকারীরা যখন পবিত্র কাবা শরিফ তাওয়াফ সম্পন্ন করবেন তখন তারা মাকামে ইবরাহিমে দুই রাকাআত নামাজ পড়বেন। তার পরই পান করবেন জমজমের এ বরকতময় পানি। 

এ প্রসঙ্গে রাসূলুল্লাহ (সা.) বলেছেন, ‘তাওয়াফ শেষে দুই রাকাআত নামাজ আদায় করে মাতআফ (তাওয়াফের স্থান) থেকে বেরিয়ে পাশেই জমজম কুপ এলাকায় প্রবেশ করবে এবং সেখানে বিসমিল্লাহ বলে দাঁড়িয়ে জমজমের পানি পান করবে। আর (হাতের কোষে নিয়ে) কিছু পানি মাথায় দেবে।’ (বুখারি-মুসলিম, মিশকাত ও মুসনাদে আহমদ)

রাসূলুল্লাহ (সা.) বলেছেন, ‘এই পানি কোনো রোগ থেকে আরোগ্য লাভের উদ্দেশ্যে পান করলে তোমাকে আল্লাহ আরোগ দান করবেন।’ (দারাকুতনি, মুসতাদরেকে হাকেম, তারগিব)

‘মূলতঃ জমজম হলো আল্লাহর বিশেষ অনুগ্রহে সৃষ্ট এক অলৌকিক কুপ। যা শিশু ইসমাইল ও তার মা হাজেরা জীবন রক্ষায় এবং পরবর্তীতে মক্কার আবাদ ও রাসূলুল্লাহ (সা.) আগমনের স্থান হিসেবে গড়ে তোলার উদ্দেশ্যেই সৃষ্টি হয়েছে।’ (বুখারি ও মুসলিম)

আল্লাহ তায়ালা মুসলিম উম্মাহর সব মক্কা ও মদিনা জিয়ারতকারীকে জমজমের পানি পানের মাধ্যমে হাদিসে ঘোষিত বরকত লাভের তাওফিক দান করুন। আমিন।

দৈনিক চাঁদপুর
দৈনিক চাঁদপুর
এই বিভাগের আরো খবর