ব্রেকিং:
উৎপাদন বৃদ্ধিতে একযোগে কাজ করার অঙ্গীকার করোনাকালে চূড়ান্ত এমপিওভুক্তির সুখবর পেল ১৬৩৩ স্কুল-কলেজ করোনা মোকাবেলায় বঙ্গবন্ধুর স্বাস্থ্যসেবা দর্শন বৈশ্বিক ক্রয়াদেশ পূরণে সক্ষম বাংলাদেশ ॥ শেখ হাসিনা মানুষের পাশে দাঁড়াচ্ছে মানুষ, দৃষ্টান্ত স্থাপন করে চলেছে করোনা পরীক্ষা হবে চার বেসরকারি হাসপাতালে ২০ হাজারের বেশি আইসোলেশন শয্যা প্রস্তুত রয়েছে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী করোনা আক্রান্তের শরীরের অক্সিজেনের পরিমাণ ঘরেই পরীক্ষার উপায় দেশে ২৪ ঘণ্টায় রেকর্ড সংখ্যক আক্রান্ত, আরো ৮ মৃত্যু করোনা মোকাবিলায় বাংলাদেশের প্রশংসা করলেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী দেশে ৫৪৯ নতুন করোনা রোগী শনাক্ত, আরো ৩ মৃত্যু হাসপাতাল থেকে পালানো করোনা রোগীকে বাগান থেকে উদ্ধার চাঁদপুরে ২০০০ পরিবারের মাঝে ইফতার সামগ্রী বিতরণ চীনের ৪ বিশেষজ্ঞ ঢাকায় আসছেন ভেন্টিলেটর-সিসিইউ স্থাপনে ১৪শ` কোটি টাকার জরুরি প্রকল্প নির্দেশনা না মানায় গণস্বাস্থ্যের কিট গ্রহণ করিনি বাংলাদেশে ১৯ মের মধ্যে করোনা বিদায় নেবে ৯৭ শতাংশ চাকরির বয়স শিথিলের বিষয় ভাবছে সরকার মানসম্মত কোন ধাপ অতিক্রম করেনি গণস্বাস্থ্যের কিট প্রধানমন্ত্রীর অনুদানের টাকা পেলেন ১৫ চরমপন্থী
  • মঙ্গলবার   ০২ জুন ২০২০ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ১৯ ১৪২৭

  • || ০৯ শাওয়াল ১৪৪১

সর্বশেষ:
একবছরে পাঁচগুণ মুনাফা বেড়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের আমাজন বাঁচাতে লিওনার্দোর ৫০ মিলিয়ন ডলারের অনুদান ১৬২৬৩ ডায়াল করলেই মেসেজে প্রেসক্রিপশন পাঠাচ্ছেন ডাক্তার জোরশোরে চলছে রূপপুর পারমাণবিক প্রকল্পের কাজ
৭৭৯

ঢাকাইয়া ‘গল্লি বয় রানা’ (ভিডিও)

দৈনিক চাঁদপুর

প্রকাশিত: ৬ জুলাই ২০১৯  

বলিউড অভিনেত্রী আলিয়া ভাট এবং রণবীর সিং অভিনীত ছবি ‘গল্লি বয়’ এর কথা মনে আছে? গেল ফেব্রুয়ারিতে মুক্তি পাওয়া ছবিটিতে দেখানো হয়েছে মুম্বাইয়ের এক ‘গল্লি বয়’ নিজের প্রতিভা দিয়ে অনেক দূর গিয়েছিলেন। আর এ ছবিতে আলিয়া এবং রণবীরের অভিনয় নজর কেড়েছিলো সবার। 

তবে এবার কোন বলিউড কিংবা সিনেমারা শুটিং-এ নয় বরং বাস্তবেই খোঁজ মিললো ‘গল্লি বয়’ এর। আর সেটিও আবার ঢাকাতেই। তার প্রতিভায় মুগ্ধ হয়ে নেটিজেনরা তাকে ভাইরাল করে দেয়।

‘ঢাকার গল্লি বয়’ এর নাম রানা। ‘হেই আমি রানা গল্লি বয়...’ শিরোনামের একটি র‌্যাপ গান সোশ্যাল মিডিয়া প্রকাশ হওয়া মাত্রই সেটি মন কেড়ে নেয় নেটিজেনদের। আর এরপরেই সেটি ভাইরাল হতে বেশি সময় নেয় নি। 

এদিকে, র‌্যাপ গানটির লেখক মাহমুদ হাসান তবীব বলেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এসএম হলের সামনে রানার সঙ্গে দেখা হওয়ার পর তিনি তাকে একটি গান শোনাতে বলেছিলেন। সেই সময় রানা তাকে একটি হিপহপ গান শোনায়। এরপরে তার প্রতিভা দেখে মুগ্ধ হন তবীব। এরপরই ভাইরাল হওয়া গানটি লিখে রানাকে দিয়ে সেটি রেকর্ড করান।

চার ভাইবোনদের মধ্যে সবচেয়ে ছোট রানা। তার জীবন এখনো বাস্তবের বেড়াজালে যেন আটকিয়ে আছে। রানার মা সিতারা বেগম বাসা-বাড়িতে রান্না-বান্নার কাজ করেন। রানা এখন অনেকের কাছেই পরিচিত মুখ হওয়ার বদৌলতে তাকে রাস্তায় দেখলে অনেকেই সেলফি তুলতে চায়। ছেলে এমন জনপ্রিয়তায় মা সিতারা বেগম বলেন, যখন তার সঙ্গে কেউ ছবি তুলতে চায় তখন আমার অনেক ভাল লাগে। তবে টাকার অভাবে ছেলেকে স্কুলে ভর্তি করাতে পারছি না।

এদিকে, রানার ইচ্ছে নিয়ে জানতে চাওয়া হলে সে বলে, নিজের লেখা গানে কণ্ঠ দেয়ার ইচ্ছে আছে তার। এছাড়া স্কুলে যাওয়ারও ইচ্ছে আছে। শুধু তাই নয়, স্কুলের পড়াশোনা শেষ করে কলেজ ভর্তি হওয়া এরপরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়েও পড়তে চায় সে।

গানের পাশাপাশি ক্রিকট খেলার প্রতি ঝোঁক আছে ঢাকাইয়া এই গল্লি বয়ের।

‘হেই আমি রানা গল্লি বয়’ শিরোনামের গানটি:-

দৈনিক চাঁদপুর
দৈনিক চাঁদপুর
বিনোদন বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর