ব্রেকিং:
ফরিদগঞ্জে ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলায় নিহতদের স্মরণে আলোচনা সভা চাঁদপুরের মতলবে পোনে ৪ কোটি টাকার জাল আটক গর্ভের বাচ্চা নষ্ট হওয়ায় অন্যের বাচ্চা চুরি ক্রিকেট খেলা নিয়ে সংঘর্ষে আহত ১৫ ‘ডেঙ্গু নিয়ে বিভ্রান্তি ছড়াচ্ছে একটি মহল’ শুভ জন্মদিন মোশাররফ করিম অনলাইনে কীভাবে জন্ম নিবন্ধন করাবেন? একাদশ সংসদের চতুর্থ অধিবেশন ৮ সেপ্টেম্বর দুর্নীতি নির্মূলে নিরলসভাবে কাজ করছে কমিশন সুস্থ হয়ে ফিরেছেন ৫১ হাজার ৬৭০ ডেঙ্গু রোগী শিগগিরই ভূমি সেবায় আসছে ই-পেমেন্ট গেটওয়ে ‘প্রত্যাবাসনের বিপক্ষে প্রচারণা চালালে ব্যবস্থা’ মাধ্যমিকে কর্মমুখী শিক্ষা বাধ্যতামূলক হচ্ছে বিএনপির পক্ষ থেকে ছিল ২১ আগস্টের হামলা: প্রধানমন্ত্রী রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে প্রস্তুত ঘুমধুম পয়েন্ট প্রধানমন্ত্রী ‘গাঙচিল’ উদ্বোধন করবেন আজ তালগাছ থেকে পড়ে যুবকের মৃত্যু গ্রেনেড হামলার ১৫ বছর, কেমন আছে নিহত আতিকের পরিবার তারেকের সর্বোচ্চ শাস্তির দাবি কাদেরের ইতালির প্রধানমন্ত্রীর পদত্যাগ

শুক্রবার   ২৩ আগস্ট ২০১৯   ভাদ্র ৭ ১৪২৬   ২১ জ্বিলহজ্জ ১৪৪০

দৈনিক চাঁদপুর
সর্বশেষ:
ঈদে স্বাস্থ্য বিভাগের সবার ছুটি বাতিলের সিদ্ধান্ত আলোচনার মাধ্যমেই রোহিঙ্গা সমাধান চায় বাংলাদেশ: প্রধানমন্ত্রী বিএনপির ব্যর্থতার দগদগে ঘা রয়েছে: ওবায়দুল কাদের জাল নোট চেনার সহজ উপায় গুজব: নায়িকা শাবনূর ‘মারা’ গেছেন!
২২৬

দেশের যেসব ব্যাংক বিয়ে করতে টাকা দেয়

প্রকাশিত: ৪ জুন ২০১৯  

বাড়ি তৈরি, গাড়ি ক্রয়, ব্যবসার জন্যসহ বিভিন্ন প্রয়োজনে অনেক ধরণের ঋণ দেয় বাংলাদেশের ব্যাংকগুলো। তবে এসব ছাড়াও এখন বিয়ে করার জন্য ঋণ দিচ্ছে অনেক ব্যাংক।

দেখে নিন বিয়ে করার জন্য ঋণ দিচ্ছে যেসব ব্যাংক- 

আইএফআইসি ব্যাংক: এই ব্যাংকও গ্রাহকভেদে সর্বোচ্চ তিন লাখ টাকা পর্যন্ত ‘বিয়ের ঋণ’ দিয়ে থাকে। এ ঋণের মেয়াদ সর্বনিম্ন এক থেকে সর্বোচ্চ তিন বছর। বার্ষিক সুদের হার সাড়ে ১৬ শতাংশ। এ ক্ষেত্রে যদি কোনো গ্রাহক তিন বছর মেয়াদের জন্য এক লাখ টাকা ঋণ নেন, তাহলে ওই গ্রাহককে প্রতি মাসে ঋণের কিস্তি বাবদ পরিশোধ করতে হবে তিন হাজার ৫৪২ টাকা।

ট্রাস্ট ব্যাংক: ব্যক্তিগত ঋণের আওতায় বিয়েসহ আরো বেশ কিছু প্রয়োজনে ঋণ-সুবিধা দেয় ব্যাংকটি। তবে ‘বিয়ের ঋণ’ নামে সরাসরি কোনো ঋণ পণ্য নেই। গ্রাহকের প্রয়োজনভেদে সর্বনিম্ন ৫০ হাজার থেকে সর্বোচ্চ ১০ লাখ টাকার ঋণ দেয়া হয়। এক থেকে পাঁচ বছর মেয়াদি এ ঋণের দুই ধরনের সুদের হার রয়েছে। চাকরিজীবীদের বেতনের বিপরীতে যে ঋণ-সুবিধা দেয়া হয়, তার বার্ষিক সুদের হার সাড়ে ১৪ শতাংশ। আর ব্যবসায়ীসহ অন্যদের বেলায় এ ধরনের ঋণের বার্ষিক সুদের হার সাড়ে ১৬ শতাংশ।

প্রাইম ব্যাংক: বেসরকারি খাতের প্রাইম ব্যাংক বলছে, সরকারি, আধা সরকারি, স্বায়ত্তশাসিত, ব্যাংক, আর্থিক প্রতিষ্ঠান, বেসরকারি সংস্থা, বিদেশি সংস্থা, ক্ষুদ্র ও মাঝারি প্রতিষ্ঠানের চাকরিজীবী, ব্যবসায়ী, বাড়ির মালিক—সবার জন্য ‘বিয়ের ঋণের’ বন্দোবস্ত রয়েছে। পেশাভেদে ১৫ হাজার থেকে ৩৫ হাজার টাকা মাসিক আয় বা বেতনের যে কেউ এ ঋণ নিতে পারবেন। গ্রাহকভেদে সর্বনিম্ন ৫০ হাজার থেকে তিন লাখ টাকা পর্যন্ত বিয়ের ঋণ দিচ্ছে প্রাইম ব্যাংক। মাসিক কিস্তিতে পরিশোধযোগ্য এ ঋণের মেয়াদ পাঁচ বছর। ঋণের বার্ষিক সুদের হার ১২ থেকে ১৫ শতাংশ।

ব্যাংক এশিয়া: বিয়ের জন্য সরাসরি কোনো ঋণ-সুবিধা না থাকলেও ব্যক্তিগত ঋণের আওতায় ঋণ নিয়ে তা বিয়ের খরচ হিসেবে ব্যবহার করতে পারেন। ব্যাংকটি সর্বনিম্ন ৫০ হাজার থেকে সর্বোচ্চ ১০ লাখ টাকা পর্যন্ত ঋণ দিচ্ছে। ১৫ হাজার টাকা মাসিক আয়ের বিভিন্ন শ্রেণির পেশাজীবীদের এ ঋণ দেয়া হয়। ঋণের বার্ষিক সুদের হার ১২ থেকে ১৫ শতাংশ পর্যন্ত।

দৈনিক চাঁদপুর
দৈনিক চাঁদপুর
এই বিভাগের আরো খবর