ব্রেকিং:
উৎপাদন বৃদ্ধিতে একযোগে কাজ করার অঙ্গীকার করোনাকালে চূড়ান্ত এমপিওভুক্তির সুখবর পেল ১৬৩৩ স্কুল-কলেজ করোনা মোকাবেলায় বঙ্গবন্ধুর স্বাস্থ্যসেবা দর্শন বৈশ্বিক ক্রয়াদেশ পূরণে সক্ষম বাংলাদেশ ॥ শেখ হাসিনা মানুষের পাশে দাঁড়াচ্ছে মানুষ, দৃষ্টান্ত স্থাপন করে চলেছে করোনা পরীক্ষা হবে চার বেসরকারি হাসপাতালে ২০ হাজারের বেশি আইসোলেশন শয্যা প্রস্তুত রয়েছে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী করোনা আক্রান্তের শরীরের অক্সিজেনের পরিমাণ ঘরেই পরীক্ষার উপায় দেশে ২৪ ঘণ্টায় রেকর্ড সংখ্যক আক্রান্ত, আরো ৮ মৃত্যু করোনা মোকাবিলায় বাংলাদেশের প্রশংসা করলেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী দেশে ৫৪৯ নতুন করোনা রোগী শনাক্ত, আরো ৩ মৃত্যু হাসপাতাল থেকে পালানো করোনা রোগীকে বাগান থেকে উদ্ধার চাঁদপুরে ২০০০ পরিবারের মাঝে ইফতার সামগ্রী বিতরণ চীনের ৪ বিশেষজ্ঞ ঢাকায় আসছেন ভেন্টিলেটর-সিসিইউ স্থাপনে ১৪শ` কোটি টাকার জরুরি প্রকল্প নির্দেশনা না মানায় গণস্বাস্থ্যের কিট গ্রহণ করিনি বাংলাদেশে ১৯ মের মধ্যে করোনা বিদায় নেবে ৯৭ শতাংশ চাকরির বয়স শিথিলের বিষয় ভাবছে সরকার মানসম্মত কোন ধাপ অতিক্রম করেনি গণস্বাস্থ্যের কিট প্রধানমন্ত্রীর অনুদানের টাকা পেলেন ১৫ চরমপন্থী
  • শনিবার   ৩০ মে ২০২০ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ১৬ ১৪২৭

  • || ০৬ শাওয়াল ১৪৪১

সর্বশেষ:
একবছরে পাঁচগুণ মুনাফা বেড়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের আমাজন বাঁচাতে লিওনার্দোর ৫০ মিলিয়ন ডলারের অনুদান ১৬২৬৩ ডায়াল করলেই মেসেজে প্রেসক্রিপশন পাঠাচ্ছেন ডাক্তার জোরশোরে চলছে রূপপুর পারমাণবিক প্রকল্পের কাজ
৫০৭

নিষিদ্ধ সময়ে ধরা মা ইলিশ লোনায় রূপান্তর

দৈনিক চাঁদপুর

প্রকাশিত: ৭ নভেম্বর ২০১৯  

গেলো অক্টোবরের ৯ তারিখ থেকে ২২ দিন ইলিশ মাছ ধরা নিষিদ্ধ ছিলো। প্রধানত আশ্বিনের পূর্ণিমার চারদিন আগে এবং পূর্ণিমার পর ১৮ দিন পর্যন্ত সময়ে মা ইলিশ ডিম ছাড়ে। 'সারা বছর ডিম ছাড়লেও ৮০ শতাংশ ডিম এ সময় ছাড়ে।' ইলিশের প্রধান প্রজনন রক্ষার জন্যে ইলিশ নিধন, পরিবহন ও বাজারজাতকরণের উপর এ নিষেধাজ্ঞা দেয় সরকার। কিন্তু মা ইলিশ রক্ষায় প্রশাসনের দিন-রাত অভিযান থাকা সত্ত্বেও চাঁদপুরের পদ্মা-মেঘনার ৭০ কিঃমিঃ নদী এলাকায় ব্যাপক মাছ ধরা হয়েছে। নিষেধাজ্ঞার সময় শেষে ৩১ অক্টোবর থেকে এখন পর্যন্ত চাঁদপুর মাছঘাটে বরফে রাখা প্রচুর ইলিশ আসছেই। তার সাথে আসছে টনে টনে লোনা ইলিশ।

একটি সূত্রে জানা যায়, এসব ইলিশ ২২ দিনের নিষেধাজ্ঞার সময় জেলেরা বিভিন্নভাবে ধরার পর এর সাথে জড়িত নদীর পাড়ের আড়তদাররা ক্রয় করে চর এলাকায় ইলিশ মাছের অাঁশ ছাড়িয়ে নিয়ে কেটে লবণ দিয়ে সংরক্ষণ করে রাখে। সেই অবৈধ রূপালি ইলিশকে লোনায় রূপান্তর করার পর এর নেপথ্যের সিন্ডিকেট এখন তা বিক্রি করার জন্যে প্রকাশ্যে নিয়ে আসছে। গত ক'দিন যাবত ইলিশের রাজধানীখ্যাত চাঁদপুর মাছঘাটে লোনায় রূপান্তর করা মা ইলিশ ও মাছের ডিম ঘাটের চিহ্নিত ৫/৭টি আড়তে ক্রয়-বিক্রয় হতে দেখা যায়।

৫ হাজার টাকা থেকে ১৯ হাজার টাকা মণ দরে এসব লোনা ইলিশ কিনে প্রক্রিয়াজাত করে নিজেদের এলাকায় নিয়ে যাচ্ছেন জামালপুর, শেরপুর, নালিতাবাড়ির ৩০/৩৫ জন পাইকারী লোনা ইলিশ ব্যবসায়ী।

শেরপুরের নজরুল জানান, তারা প্রতি কেজি লোনা ইলিশের ডিম কিনছেন ৪শ' টাকা হতে ১১শ' টাকায়।বিশেষজ্ঞ মহলের মতে, ২২ দিন বিরতির পর ইলিশের যে চিত্র চারিদিকে ফুটে উঠেছে তাতে স্পষ্ট এবার মা ইলিশ পুরোপুরি রক্ষা পায়নি। ডিম ছাড়ার আগেই লোভী জেলেরা ধরে ফেলেছে। এতে ইলিশের বংশ বিস্তার ব্যাহত হয়েছে।

নদীতে সবদিকের জেলেরা ব্যাপক হারে মা ইলিশ নিধন করায় জেলে-আড়তদার লাখ লাখ টাকা কামিয়ে নিয়েছে। মা ইলিশের সময়ই অনেকের টাকা উপার্জনের প্রধান মৌসুম হয়ে দাঁড়িয়েছে।

দৈনিক চাঁদপুর
দৈনিক চাঁদপুর
নগর জুড়ে বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর