ব্রেকিং:
‘দুর্নীতির বিরুদ্ধে অভিযান সারাদেশেই চলবে’ প্রমাণ পেলে সবার বিরুদ্ধেই ব্যবস্থা: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী হাজীগঞ্জ উপজেলার ইছাপুরা গ্রামে নেমেছে শোকের ছায়া ব্যতিক্রম ওসি! জানুন বিস্তারিত মতলবে খাদেরগাঁও বায়তুল ফালাহ জামে মসজিদের উদ্বোধন নারীদের যেভাবে দক্ষ হিসেবে গড়ে তুলতে হবে হাইমচরে উত্তর ইউনিয়ন কৃষকদলের সম্মেলন অনুষ্ঠিত চাঁদপুর মাছঘাটে এতো ইলিশ কোথা থেকে এলো আজ কমিউনিটি পুলিশিং সমন্বয় কমিটির সাথে পুলিশ সুপারের মতবিনিময় বাঘড়ায় জমজমাট এই ধরণের ব্যবসা, জানুন বিস্তারিত চাঁদপুরে যেভাবে রাজস্ব থেকে বঞ্চিত হচ্ছে সরকার বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবর্ষ উদযাপনে ফরিদগঞ্জে `বঙ্গবন্ধু উৎসব` শুরু কচুয়ায় আদালতের মাধ্যমে যে অমূল্য সম্পদ ফিরে পেলো অসহায় পারুল বেগম চতুরঙ্গ ইলিশ উৎসবের সার্বিক প্রস্তুতি সভা চাঁদপুরে ৪২৮ কোটি টাকার যেসকল ক্রয় প্রস্তাব অনুমোদন চাঁদপুরে বিদ্যুতের তারের জন্য এ কি হলো মাদরাসা ছাত্রের অনিয়ম-দুর্নীতির কারণে দলের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন হলে ব্যবস্থা: কাদের ফরিদগঞ্জে নতুন প্রজন্মকে বঙ্গবন্ধু সম্পর্কে সঠিক ধারণা বলাখালে স্ট্যান্ডকেন্দ্রিক চাঁদা ও শিক্ষার্থী হয়রানি চাঁদপুরে শিক্ষকদের ১১তম ও ১০তম গ্রেডের দাবি

রোববার   ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯   আশ্বিন ৬ ১৪২৬   ২২ মুহররম ১৪৪১

দৈনিক চাঁদপুর
সর্বশেষ:
একবছরে পাঁচগুণ মুনাফা বেড়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের আমাজন বাঁচাতে লিওনার্দোর ৫০ মিলিয়ন ডলারের অনুদান রাজধানীতে চার জঙ্গি আটক ১৬২৬৩ ডায়াল করলেই মেসেজে প্রেসক্রিপশন পাঠাচ্ছেন ডাক্তার জোরশোরে চলছে রূপপুর পারমাণবিক প্রকল্পের কাজ
৬৬৩

পবিত্র আশুরার রোজার গুরুত্ব ও ফজিলত

প্রকাশিত: ৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯  

পবিত্র আশুরা দিবসে রোজা পালনের জন্য আমাদের প্রিয় নবী রাসূলুল্লাহ (সা.) নির্দেশ দিয়েছেন। 

আয়েশা (রা.) থেকে বর্ণিত, ‘রাসূল (সা.) বলেন, রমজান মাসের রোজার পর সর্বোত্তম রোজা আল্লাহর মাস মহররমের আশুরার রোজা।’ (সুনানে কুবরা: ৪২১০)

হজরত আবু হুরায়রা (রা.) থেকে বর্ণিত, ‘তিনি বলেন, রাসূলুল্লাহ (সা.) বলেছেন, ‘রমজানের পর সর্বাধিক উত্তম রোজা হলো মহররম মাসের রোজা। আর ফরজের পরে সর্বাধিক উত্তম নামাজ হলো তাহাজ্জুদের নামাজ।’ (মুসলিম: ১/৩৫৮)

ইসলামের প্রাথমিক যুগে আশুরার রোজা ফরজ ছিলো। দ্বিতীয় হিজরি সনে রমজানের রোজা ফরজ হওয়ার বিধান নাজিল হলে আশুরার রোজা ঐচ্ছিক হিসেবে বিবেচিত হয়। 

রাসূলুল্লাহ (সা.) এই রোজা নিজে পালন করেছেন। উম্মতকে রাখার প্রতি উৎসাহিত করেছেন। তাই এর পূর্ণ অনুসরণ ও আনুগত্যের মধ্যেই নিহিত রয়েছে উম্মতের কল্যাণ। আবু কাতাদা (রা.) সূত্রে বর্ণিত, রাসূল (সা.)-কে আশুরার রোজার ফজিলত সম্পর্কে জিজ্ঞেস করা হলে তিনি বলেন, ‘এই রোজা বিগত বছরের গুনাহ মুছে দেয়।’ (মুসলিম, হাদিস: ১১৬২)

আরো বর্ণিত আছে, ‘আশুরা দিবসের সাওম সম্পর্কে রাসূলুল্লাহ (সা.)-কে জিজ্ঞাসা করা হলে তিনি বলেছিলেন, এর ফলে আগের বছরের গোনাহ মাফ করে দেয়া হয়।’ (মুসলিম: ১/৩৫৮)

হজরত আয়েশা (রা.) বলেন, ‘জাহিলিয়া যুগে কুরাইশরা আশুরা দিবসে রোজা পালন করতো। রাসূলুল্লাহ (সা.)-ও সে কালে রোজা পালন করতেন। মদিনায় এসেও তিনি রোজা পালন করতেন এবং অন্যদেরও নির্দেশ দিলেন। রমজানের রোজার আদেশ নাজিল হলে আশুরা দিবসকে বর্জন করা হয়। এখন কেউ চাইলে তা পালন করুক, আর চাইলে তা বর্জন করুক।’ (বুখারি: ১/২৬৮)

আশুরার রোজা ও ইহুদি সম্প্রদায়:
মুসলিম শরিফে আবদুল্লাহ ইবনে আব্বাস (রা.) থেকে বর্ণিত- ‘মহানবী (সা.) যখন আশুরার দিনে রোজা রাখেন এবং অন্যদেরও রোজা রাখার নির্দেশ দেন, তখন সাহাবিরা অবাক হয়ে বলেন, ইয়া রাসূলাল্লাহ! ইহুদি-নাসারারা তো এই দিনটিকে বড়দিন মনে করে। (আমরা যদি এই দিনে রোজা রাখি, তাহলে তো তাদের সঙ্গে সামঞ্জস্য হবে। তাদের প্রশ্নের উত্তরে রাসূল (সা.) বললেন, ‘তারা যেহেতু এদিন একটি রোজা পালন করে) আগামী বছর ইনশাআল্লাহ আমরা এই ১০ তারিখের সঙ্গে ৯ তারিখ মিলিয়ে দুই দিন রোজা পালন করবো। (মুসলিম: ১১৩৪)

মহররম মাসে রোজা রাখার প্রতি বিশেষভাবে গুরুত্ব দেয়া হয়েছে। হজরত আবু হুরায়রা (রা.) থেকে বর্ণিত এক হাদিসে নবী করিম (সা.) বলেন, ‘রমজানের পর আল্লাহর মাস মহররমের রোজা হলো সর্বশ্রেষ্ঠ।’ (মুসলিম: ২/৩৬৮; জামে তিরমিজি: ১/১৫৭)

আবদুল্লাহ ইবনে আব্বাস (রা.) বলেন, ‘আমি রাসূল (সা.)-কে রমজান ও আশুরায় যেরূপ গুরুত্বের সঙ্গে রোজা রাখতে দেখেছি, অন্য সময় তা দেখিনি। (বুখারি: ১/২১৮)

হজরত আলী (রা.)-কে এক ব্যক্তি প্রশ্ন করেছিল, রমজানের পর আর কোন মাস আছে, যাতে আপনি আমাকে রোজা রাখার আদেশ করেন? তিনি বললেন, এই প্রশ্ন রাসূলুল্লাহ (সা.)-এর নিকট জনৈক সাহাবি করেছিলেন, তখন আমি তার কাছে উপস্থিত ছিলাম। উত্তরে রাসূল (সা.) বললেন, ‘রমজানের পর যদি তুমি রোজা রাখতে চাও, তবে মহররম মাসে রাখো। কারণ, এটি আল্লাহর মাস। এ মাসে এমন একটি দিন আছে, যে দিনে আল্লাহ তায়ালা একটি জাতির তওবা কবুল করেছেন এবং ভবিষ্যতেও অন্যান্য জাতির তওবা কবুল করবেন।’ (জামে তিরমিজি: ১/১৫৭)

আশুরার রোজা সম্পর্কে এক হাদিসে এসেছে, ‘তোমরা আশুরার রোজা রাখো এবং ইহুদিদের সাদৃশ্য ত্যাগ করো; আশুরার আগে বা পরে আরো একদিন রোজা রাখো।’ (মুসনাদে আহমদ: ১/২৪১)

দৈনিক চাঁদপুর
দৈনিক চাঁদপুর
এই বিভাগের আরো খবর