ব্রেকিং:
চার্জে দিয়ে মোবাইলে গেম, প্রাণ গেল স্কুলছাত্রের কথা ছিল একসঙ্গে নার্স হবেন, হলেন লাশ বিরল রোগে আক্রান্ত শিশু মাহমুদুল বাঁচতে চায় দুঃসংবাদ জানালো আবহাওয়া অধিদফতর মাশরাফী-সাকিবদের সুখবর দিলেন প্রধানমন্ত্রী চাঁদপুর পৌরসভার উন্নয়ন কাজ ধারাবাহিকভাবে এগিয়ে চলছে আজ চাঁদপুরে এসেছেন সুজিত রায় নন্দী পানিশূন্য হচ্ছে চেন্নাই! বিশ্বকাপে বাংলাদেশের ‘শত্রু’ কেন আলিম দার? কালো সোনা সাদা করে হাজার কোটি টাকা পাচ্ছে সরকার মেয়াদোত্তীর্ণ ইনজেকশনে আপত্তি, নার্সকে পেটাল ফার্মেসির লোক দুই জুলাইয়ের মধ্যে মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ ধ্বংসের নির্দেশ ২০৩০ সালের মধ্যে দারিদ্র্য শূন্যের কোটায় আসবে যুক্তরাষ্ট্রের বিরুদ্ধে মামলা করেছে হুয়াওয়ে ফেসবুকে প্রতারণা, কঠোর অবস্থানে ডিএসই ভারতকে হারানোর ক্ষমতা আমাদের আছে: সাকিব ওয়াও সাকিব সাকিবের দিনে টাইগারদের জয় আঘাতে শক্তিশালী হয়েছে আওয়ামী লীগ: শেখ হাসিনা জাতির জনকের আদর্শের কর্মী হিসেবে অন্যায়ের কাছে মাথা নত করবো না

বুধবার   ২৬ জুন ২০১৯   আষাঢ় ১১ ১৪২৬   ২২ শাওয়াল ১৪৪০

দৈনিক চাঁদপুর
সর্বশেষ:
আওয়ামী লীগই দেশকে এগিয়ে নিচ্ছে: শেখ হাসিনা ব্রাজিল-পেরুর ম্যাচে বাংলাদেশের জার্সি-পতাকা নিয়ে এক সমর্থক আমার হাত দুটো কব্জি থেকে কেটে দেন : বৃক্ষমানব সজীব ওয়াজেদ জয় গুচ্ছগ্রামে আশ্রয় পেল ১৪০ পরিবার ‘সেই স্বাধীনতার সূর্য আওয়ামী লীগের হাতেই উদিত হয়েছিল’
৫৫

পাসওয়ার্ড: ‘বিশ্বমানের’ সিনেমা কি এমন হয়?

প্রকাশিত: ৯ জুন ২০১৯  

চলচ্চিত্রের নাম : পাসওয়ার্ড
পরিচালক : মালেক আফসারী
প্রযোজনা: শাকিব খান ফিল্মস
অভিনয়: শাকিব খান (রুদ্র), মামুনুন হাসান ইমন (রুশো), শবনম বুবলী, মিশা সওদাগর (ভিক্টর), অমিত হাসান (ওসি কবির খান), শিবা শানু (আলাউদ্দিন সরকার), ডন (কায়সার), নাদের খান, শরীফুল ইসলাম, জাহিদ হাসান, সীমান্ত আহমেদ, সাংকো পাঞ্জা, যাদু আজাদ, কমল পাটেকার, তনামৗ হক, মন, সাদিয়া প্রমুখ।
ধরণ : অ্যাকশন থ্রিলার
রেটিং : পুরোটা পড়লে জানতে পারবেন
দেশের চলচ্চিত্র ইন্ডাস্ট্রির সবচেয়ে বড় তারকা শাকিব খান ৫ বছর পর প্রযোজনায় ফিরেছেন ‘পাসওয়ার্ড’ সিনেমার মাধ্যমে। এই ছবিতে শাকিব খানকে অত্যন্ত আত্মবিশ্বাসী দেখা গেছে। তার দাবি বিশ্বমানের ছবি এটি। সত্যি বলতে, শাকিব তার ছবিতে আয়োজনটা তেমনই জমজমাট রেখেছেন। সুন্দর সব লোকেশনে গানগুলো শুট করা হয়েছে। ছবির অ্যাকশন বা অন্যান্য ড্রামাটিক দৃশ্যগুলোতেও সাধ্যের মধ্যে যতটুকু আয়োজন সম্ভব, তা ছিল। অন্তত সার্বিক আয়োজন বা টেকনোলোজির দিক থেকে বিবেচনা করলে ছবি বাংলা বানিজ্যিক ছবি হিসেবে কিছুটা হলেও মানসম্মত হয়েছে। ফলে শাকিব খানের এই কথায় আপত্তি করার কিছু নেই।

তবে এর গল্প ও চিত্রনাট্য গতানুগতিক বানিজ্যিক ছবির যে ফরম্যাট তার মধ্যেই ঘুরপাক খেয়েছে। টেকনোলজির ব্যবহারে যদিও বা বিশ্বমানের বলা যায়, গল্প আর চিত্রনাট্যে একে কোনো অবস্থাতেই বিশ্বমানের ছবি বলা যায় না। তবে আশার কথা হচ্ছে ‘পাসওয়ার্ড’ এর গল্প বা চিত্রনাট্য বস্তাপঁচা বাংলা সিনেমাগুলোর মত জঘন্যও না। গতানুগতিক ফরম্যাটের মধ্যেই খানিকটা ভিন্নতার স্বাদ ছিল পাসওয়ার্ডের গল্পে ও চিত্রনাট্যে।


 
ছবির কাহিনী ও সংলাপ লিখেছেন চিত্রনাট্যকার আব্দুল্লাহ জহির বাবু, চিত্রনাট্য সাজিয়েছেন পরিচালক নিজেই। তাদের বিরুদ্ধে অতিতে ভারতীয় ছবি নকলের অঢেল অভিযোগ থাকলেও এ ছবির গল্প তিনি ভারত থেকে আমদানি করেননি! ছবির শুরুটা অনেক বেশি আকর্ষণীয়, দেখতে পাওয়া যায় মধ্যরাতে এক যুবক গুলিবিদ্ধ অবস্থায় এদিক-সেদিক ঘুরছে, তার পেছনে বেশ কয়জন লোক ধাওয়া করছে। একসময় সেই যুবক মাটিতে লুটিয়ে পড়ে এবং গল্প চলে যায় ফ্ল্যাশব্যাকে।

পুরো ছবিটি একটি নির্দিষ্ট জায়গায় ফোকাস রেখে এদিক-সেদিক এগিয়েছে বিধায় শুরু থেকে মনের মধ্যে দারুণ উত্তেজনা কাজ করেছে। ধীরে ধীরে দারুণ সব সিকোয়েন্সের সমন্বয় ঘটলেও একটা সময় গিয়ে মনে হয়েছে গল্প অনেকখানি সমতল হয়ে গিয়েছে। অর্থাৎ এর পরবর্তী এক ঘণ্টায় কী ঘটবে যাচ্ছে তা বোঝা যাচ্ছিলো। এক্ষেত্রে গল্পে কিছু টুইস্ট এবং মোড়ের দরকার হয়, যা দেখে দর্শকসমেত সবাই চমকে উঠবে। এ ছবিতে ছোট পরিসরে কিছু একটা থাকলেও যা আছে তা চমকে দেয়ার জন্য মোটেও পর্যাপ্ত না। এরকম গল্পের ক্ষেত্রে চিত্রনাট্যকার এবং পরিচালক সাধারণত তার চিত্রনাট্য নিয়ে দর্শকদের সামনে খেলা করে, দর্শককে গোলকধাঁধায় ফেলে এবং পরিপূর্ণ তৃপ্তি দেয়। এই উপাদানটি এ ছবিতে অনুপস্থিত।

পাসওয়ার্ড সিনেমায় শাকিব খান
পাসওয়ার্ড সিনেমায় শাকিব খান


গল্প শাকিব খান এবং তার ভাই (ইমন) কে নিয়ে। ইমন অটিস্টিক। একদিন তার সামনে খুন হয় এক ব্যাক্তি। সেই ব্যক্তির সঙ্গে থাকা পেন ড্রাইভটি ঘটনাক্রমে ইমনের সামনে চলে আসলে ইমন কৌতুহলবশত সেটা তুলে নেয়। ফলে স্বভাবতই আন্ডার ওয়ার্ল্ডের ডন মিশা সওদাগরের টার্গেটে পরিনত হয় শাকিব এবং ইমন।

যারা অ্যাকশন সিনেমার ভক্ত তাদের কাছে এ ধরনের গল্প ভাল লাগতেও পারে। মেকিং ভাল ছিল। আধুনিক ধারাটা ছিল মেকিং-এ। তবে বিশ্বমানের হতে হলে এটুকু যথেষ্ট না। চিন্তা-ভাবনায় এবং সিনেমার উপস্থাপনায় আরো অনেক অনেক নতুনত্ব দরকার। না হলে বিশ্বমানের বলা যায় না। তবে শিকারী, নবাবের মত কলকাতার বানিজ্যিক ছবির মানকে স্ট্যান্ডার্ড ধরলে পাসওয়ার্ড এগুলোর কাছাকাছি মানের হয়েছে। বাংলাদেশের ছবির মান বিচার করলে এইটুকু আপাতত প্রাপ্তি বলা যায়।


 
অভিনয়ে সবাই ঠিকঠাক। শাকিব খান সাধারণ মানের অভিনয় করেছেন। তার লুকটা খুবই দূর্বল লেগেছে, যেটা এ ছবির একটা বড় দুর্বলতা। ইমন অটিস্টিক চরিত্রে চেষ্টা করেছে, মোটামুটি ভালো হয়েছে। তার চরিত্রটা সত্যিই গুরুত্বপূর্ণ ছিল। পুরো ছবির সবচেয়ে চ্যালেঞ্জিং চরিত্র। বুবলীর তেমন কিছু করার ছিল না। অন্যরাও গতানুগতিক অভিনয় করেছে।

পাসওয়ার্ড এর সিনেমাটোগ্রাফী ঠিকঠাক মনে হয়েছে। কিছু কিছু দৃশ্য দেখতে অসাধারণ লেগেছে। লোকেশন ভালো ছিল বলে দৃশ্য আরো ভাল লেগেছে। এডিটিং ভাল হয়েছে। ন্যারেটিভ স্টাইলও কিছুটা ব্যতিক্রম ছিল, আবার ছবিতে কোথাও বিরক্ত হওয়ার সুযোগ রাখা হয়নি। ফলে এডিটিং টিমকে কিছু ক্রেডিট দেয়াই যায়। ব্যাকগ্রাউন্ড মিউজিক মোটামুটি ভাল বলা যায়। আর গান সিনেমা হলে ভাল লেগেছে। ইউটিউবে তেমন ভাল না লাগলেও বড় পর্দায় গানগুলো উপভোগ করার মতো।

সবমিলিয়ে, পাসওয়ার্ড শাকিব খানের গতানুগতিক ছবিগুলো থেকে অনেকটাই উন্নত। তবে ছবির গল্প ও চিত্রনাট্য গতানুগতিক বানিজ্যিক ছবির ফরম্যাটেই আবদ্ধ ছিল। অ্যাকশন থ্রিলারে যতটা থ্রিল দরকার তা ছবিতে নেই। আবার বস্তাপঁচা বাংলাদেশী ছবিগুলোর মত চরম বিরক্তিকর ছবিও এটা না। ভিন্ন ধারার ছবি যাদের পছন্দ অর্থাৎ ক্লাস অডিয়েন্সের জন্য এ ছবি খুব একটা আকর্ষনীয় হবে না।

দৈনিক চাঁদপুর
দৈনিক চাঁদপুর
এই বিভাগের আরো খবর