ব্রেকিং:
পুলিশের অভিযানে বিপুল পরিমান ইলিশ জব্দ অভিনব কায়দায় ২ দিনে ৪টি চুরি মা ইলিশ ধরায় ১৩ জেলেকে কঠোর শাস্তি কোয়ার্টার ফাইনালে চাঁদপুর হাজীগঞ্জ-শাহরাস্তিতে বন্ধ হচ্ছে ভিক্ষাবৃত্তি আশ্রয়কেন্দ্র উদ্বোধন নতুন মোটরসাইকেল কিনে বাড়ি ফেরা হলো না ‘ডিজিটাল পদ্ধতিতে পরিচালিত হচ্ছে বাংলাদেশ’ জেএসসি-জেডিসি পরীক্ষা: ২২ দিন কোচিং সেন্টার বন্ধ বুয়েটে ভর্তি পরীক্ষা আজ সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে নজরদারি বাড়ানো হবে: শিক্ষামন্ত্রী দক্ষিণ এশিয়ায় দ্রুত বর্ধনশীল অর্থনীতিতে দ্বিতীয় বাংলাদেশ ২৪ উপজেলা-ইউপি-পৌরসভার ভোট আজ নভেম্বরের মধ্যে সকল উপজেলা কমিটির সম্মেলন শেষ হবে পূজা মণ্ডপে ছিলো ব্যতিক্রমধর্মী কার্যক্রম প্রভাবশালীদের সরকারি খাল দখল ইউএনও’র সাহসিকতায় রক্ষা পেল কিশোরী সংগঠন শক্তিশালী করতে তৃণমূলের প্রতি বিশেষ দিক-নির্দেশনা মসজিদে ভয়াবহ হামলা, নিহত ১৬ কম দামী গ্যালাক্সি নোট ১০ আনছে স্যামসাং

মঙ্গলবার   ১৫ অক্টোবর ২০১৯   আশ্বিন ২৯ ১৪২৬   ১৫ সফর ১৪৪১

দৈনিক চাঁদপুর
সর্বশেষ:
একবছরে পাঁচগুণ মুনাফা বেড়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের আমাজন বাঁচাতে লিওনার্দোর ৫০ মিলিয়ন ডলারের অনুদান রাজধানীতে চার জঙ্গি আটক ১৬২৬৩ ডায়াল করলেই মেসেজে প্রেসক্রিপশন পাঠাচ্ছেন ডাক্তার জোরশোরে চলছে রূপপুর পারমাণবিক প্রকল্পের কাজ
৪৭

ভারী বৃষ্টিতে ডুবছে ভারত, ১৬০০ জনের মৃত্যু

প্রকাশিত: ৩ অক্টোবর ২০১৯  

ভারতে চলতি মৌসুমে রেকর্ড বৃষ্টিপাতের ফলে মৃতের সংখ্যা ১৬০০ ছাড়িয়েছে। গত জুন থেকে শুরু হওয়া এই ভারী বৃষ্টিপাতে মৃতের সংখ্যা এখনও বেড়েই চলছে। 

মঙ্গলবার দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে এ খবর প্রকাশ করা হয়েছে। চলতি মৌসুমে গত ২৫ বছরের মধ্যে দেশটিতে সবচেয়ে ভারী বৃষ্টিপাত হওয়ায় এই প্রাণহানী ঘটেছে বলে জানিয়েছে তারা। এদিকে গত চার-পাঁচদিনের টানা বৃষ্টিতে মৃত্যু হয়েছে অন্তত আরো ১৫৪ জনের।

ভারতে সাধারণত জুন থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত স্থায়ী হয় বৃষ্টিপাতের মৌসুম। গত ৫০ বছরে এই সময়ে গড় বৃষ্টিপাতের চেয়ে এবার অন্তত ১০ সেন্টিমিটার বেশি বৃষ্টি হয়েছে। এ বছর অক্টোবরেও বৃষ্টিপাত হবে ধারণা করা হচ্ছে।

মঙ্গলবার ভারতের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের প্রকাশিত পরিসংখ্যান অনুযায়ী, এ বছর ২৯ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত বৃষ্টির কারণে মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১ হাজার ৬৭৩ জনে। এর মধ্যে উত্তর প্রদেশ ও মহারাষ্ট্রে মারা গেছে ৩৭১ জন। কর্মকর্তারা বলছেন, বৃষ্টিপাতের কারণে দেয়াল ও ভবন ধসে অনেকে নিহত হয়েছে।

ভারী বৃষ্টিপাতের কবলে পড়ে উত্তর প্রদেশ ও বিহার রাজ্য তীব্র বন্যার কবলে পড়েছে। শুক্রবার থেকে এখন পর্যন্ত দুটি রাজ্যে ১৪৪ জনের প্রাণহানি হয়েছে বলে জানিয়েছেন সেখানকার কর্মকর্তারা।

বিহারের রাজধানী পাটনা শহরে প্রায় ২০ লাখ মানুষের বাস। সেখানকার বাসিন্দারা বলছেন, খাবার ও দুধের মতো নিত্যপ্রয়োজনীয় সামগ্রী সংগ্রহ করতেও তাদের কোমর সমান পানি পার হতে হচ্ছে। পাটনার আশিয়ানা এলাকার বাসিন্দা রঞ্জিব কুমার (৬৫) জানিয়েছেন, পুরো এলাকা পানিতে তলিয়ে আছে। এখানকার পরিস্থিতি ভয়াবহ।

 

সোমবার বিহারের উপ-মুখ্যমন্ত্রী সুশীল মোদিকে তার পাটনার বাড়ি থেকে উদ্ধার করেন ত্রাণকর্মীরা। ভিডিও ফুটেজে দেখা গেছে, পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে টি-শার্ট ও শর্টস পরে বের হয়ে আসছেন তিনি।

পাটনার বোরিং রোডের বাসিন্দা সাকেত কুমার সিং জানান, তিনি চারদিন ধরে বাড়ির মধ্যে দুই ফুট পানিতে আটকা পড়েছেন। তিনি বলেন, বিদ্যুৎ নেই, হাতে টাকা থাকলেও আমি অসহায়।

পার্শ্ববর্তী রাজ্য উত্তর প্রদেশে ভারী বৃষ্টিপাতের কবলে পড়ে প্রায় আটশো বাড়ি ও কৃষি খামার তলিয়ে গেছে।

দৈনিক চাঁদপুর
দৈনিক চাঁদপুর
এই বিভাগের আরো খবর