ব্রেকিং:
মতলব উত্তরে পুকুরের প্রকৃত মালিককে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি ধনাগোদা নদীতে ফেলে মাদ্রাসা ছাত্রকে হত্যার চেষ্টা চাঁদপুরে প্রাথমিক ও ইবতেদায়ী পরীক্ষার প্রথমদিন অনুপস্থিত ১৮৮৭ কচুয়ায় আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন ফরিদগঞ্জে মাদ্রাসা ছাত্রীর রহস্যজনক মৃত্যু পেঁয়াজের পাইকারি বাজারে অভিযান চাঁদপুরে এবার বীজ বরাদ্দ ৯৪৫ মে.টন ১শ` ৪০ কোটি টাকার উন্নয়নের জোয়ারে ভাসছে শাহরাস্তি মতলব পিইসি ও সমমান পরীক্ষায় প্রথম দিনে অনুপস্থিত ১৫১ চাঁদপুরে বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী অত্যন্ত জাঁকজমকভাবে পালন হবে বেহেশতী নারীর ৪ গুণ গ্রান্ড দুবাই এয়ারশো-এ প্রধানমন্ত্রীর যোগদান মৈত্রী শিশু উদ্যান এন্ড হাইস্কুলে মিলাদ ও দোয়া অনুষ্ঠিত সহদেবপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত গ্রাম আদালত বিচার ব্যবস্থার একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ পূজা উদযাপন পরিষদ চাঁদপুর শাখার বিশেষ বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত স্কুল কর্তৃপক্ষের অবহেলার কারণে এসএসসি পরীক্ষা দিতে পারছে না সজিব ৩২ লক্ষ টাকার অর্থদণ্ডপ্রাপ্ত আসামী আটক মতলবের গর্ব দিলশাদ জাহান ইথেন চাঁদপুরের কৃতী সন্তান মোঃ কাউছ মিয়ার বিরল রেকর্ড

মঙ্গলবার   ১৯ নভেম্বর ২০১৯   অগ্রাহায়ণ ৪ ১৪২৬   ২১ রবিউল আউয়াল ১৪৪১

দৈনিক চাঁদপুর
সর্বশেষ:
একবছরে পাঁচগুণ মুনাফা বেড়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের আমাজন বাঁচাতে লিওনার্দোর ৫০ মিলিয়ন ডলারের অনুদান রাজধানীতে চার জঙ্গি আটক ১৬২৬৩ ডায়াল করলেই মেসেজে প্রেসক্রিপশন পাঠাচ্ছেন ডাক্তার জোরশোরে চলছে রূপপুর পারমাণবিক প্রকল্পের কাজ
৬৩১

ভুতুড়ে শহরে ২২ বছর ধরে একা বাস করছেন তিনি

প্রকাশিত: ৪ আগস্ট ২০১৯  

জনশূন্য এক শহর সেরো গোর্দো। যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ার এই শহরটি জনমানবহীন হওয়ায় লোকমুখে শহরটি পরিচিত ‘ভূতের শহর’ হিসেবে। অথচ এই শহরেই কি না ২২ বছর ধরে একাকী বাস করছেন রবার্ট লুইস ডেমারাইস নামের এক ব্যক্তি!
বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, আক্ষরিক অর্থেই জনশূন্য এ শহরে পরিবার ছেড়ে দুই দশকেরও বেশি সময় ধরে বাস করছেন ৭০ বছর বয়সী সাবেক স্কুলশিক্ষক ডেমারাইস। হারিয়ে যাওয়া রুপার খনির খোঁজে ‘ভুতুড়ে’ এ শহরে বাস করছেন তিনি।

শিক্ষকতা করার সময় মাঝে মাঝেই ছুটি কাটাতে দুর্গম এ শহরে যেতেন ডেমারাইস। কিন্তু একপর্যায়ে খনি সন্ধানের নেশা পেয়ে বসে তাকে। সে কারণে শহরের কোলাহল ছেড়ে পাহাড়বেষ্টিত এ শহরে একেবারেই বসতবাড়ি গেড়েছেন তিনি। শুরুতে সঙ্গে নিয়ে এসেছিলেন স্ত্রীকেও। কিন্তু সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে ৮ হাজার ২০০ ফুট উঁচু এ শহরে মানিয়ে নিতে পারেননি তার স্ত্রী। ফলাফল, শহরের একমাত্র বাসিন্দা এখন ডেমারাইসই।

স্প্যানিশ ভাষায় সেরো গোর্দো শব্দটির অর্থ দাঁড়ায় মোটা পাহাড়। অসংখ্য পাহাড়ে ঘেরা এ শহরটি অনেক আগে থেকেই রূপার মজুতের জন্য বিখ্যাত। এক সময় ক্যালিফোর্নিয়ার সবচেয়ে বেশি রূপা মিলত এ শহরেই। ডেমারাইসের দাবি, এ শহরের রুপা দিয়েই সমৃদ্ধ হয়েছে লস অ্যাঞ্জেলেস। আস্তে আস্তে বিলীন হতে থাকে এ শহরের রূপা। কিন্তু বেশ কয়েকবার ভ্রমণে গিয়ে ডেমারাইসের মনে হয়েছে, ভালোভাবে খুঁজলে এখনো এ শহরে রূপার অস্তিত্ব পাওয়া সম্ভব। আর সে কারণেই দীর্ঘ ২২ বছরে এখানে রূপার খোঁজ চালিয়ে যাচ্ছেন তিনি।

আশা পূরণ না হলেও একেবারে নিরাশও হতে হয়নি তাকে। অল্প সময়ের মধ্যেই বড় একটি রূপার খনির সন্ধান পাবেন বলেও আশাবাদী তিনি। ডেমারাইস বলেছেন, ‘আশা করছি খনিটির সন্ধান পেয়ে যাব। এই উদ্দেশ্যেই তো এখানে বাস করছি আমি। ২২ বছর ধরে এক ঠেলাগাড়ির সমান রূপা সংগ্রহ করেছি আমি।’

নির্জন এ শহরে থেকেই উপার্জনের ব্যবস্থা করে নিয়েছেন ডেমারাইস। সেরো গোর্দোতে ঘুরতে আসা পর্যটকদের কাছে ৫ থেকে ২০ ডলারে একেক টুকরো অপরিশোধিত রুপা বিক্রি করেন তিনি। ঘুরতে আসা পর্যটকদের গাইড হিসেবে শহরটি ঘুরিয়ে দেখানোর কাজও করে থাকেন তিনি। ঘুরিয়ে দেখানোর সময় ১৮৬৫ সালে প্রতিষ্ঠিত এ শহরের সুদীর্ঘ ইতিহাসও শোনান পর্যটকদের।

পাহাড়বেষ্টিত এ শহরে বিদ্যুৎ সংযোগ থাকলেও নেই পানির প্রাকৃতিক কোনো উৎস। যে কারণে কীলার নামের নিকটস্থ এক শহর থেকে লরি ভর্তি করে পানি আনতে হয় তাকে।

এত বছর ধরে শহরের আনাচে কানাচে খনি খুঁজে বেড়ানোর পর এবার মাটির নিচে গিয়ে রূপার খনি খুঁজতে চান তিনি। কিন্তু শহরটির বর্তমান মালিক যে দু’জন, সেই ব্রেন্ট আন্ডারউড ও জন বিয়ার এ প্রস্তাবে সম্মত হননি। গত বছরের জুলাইয়ে প্রায় ১৪ লাখ ডলার দিয়ে শহরটি কিনে নেন তারা। ডেমারাইসের মতো তারাও মনে করেন, এ শহরে হারানো রূপার খনি খুঁজে পাওয়া যেতে পারে। তবে মাটির নিচে রূপার খনি খুঁজতে যাওয়া ‘অত্যন্ত বিপজ্জনক’ বলে এ ব্যাপারে সম্মত হচ্ছেন না তারা।

বিবিসিকে দেয়া সাক্ষাৎকারে আন্ডারউড ও বিয়ার বলেছেন, ‘আমরা বিশ্বাস করি যে এক দিন এই শহরে হারানো রূপার খনি অবশ্যই খুঁজে পাওয়া যাবে। পাহাড়ঘেরা এই শহর থেকে অন্তত ৫০০ মিলিয়ন ডলার সমমূল্যের রূপা এরই মধ্যে আহরণ করা হয়ে গেছে। শোনা যায়, আরও ৫০০ মিলিয়ন সমমূল্যের রূপা এই শহরে লুকিয়ে আছে।’

দৈনিক চাঁদপুর
দৈনিক চাঁদপুর