ব্রেকিং:
উৎপাদন বৃদ্ধিতে একযোগে কাজ করার অঙ্গীকার করোনাকালে চূড়ান্ত এমপিওভুক্তির সুখবর পেল ১৬৩৩ স্কুল-কলেজ করোনা মোকাবেলায় বঙ্গবন্ধুর স্বাস্থ্যসেবা দর্শন বৈশ্বিক ক্রয়াদেশ পূরণে সক্ষম বাংলাদেশ ॥ শেখ হাসিনা মানুষের পাশে দাঁড়াচ্ছে মানুষ, দৃষ্টান্ত স্থাপন করে চলেছে করোনা পরীক্ষা হবে চার বেসরকারি হাসপাতালে ২০ হাজারের বেশি আইসোলেশন শয্যা প্রস্তুত রয়েছে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী করোনা আক্রান্তের শরীরের অক্সিজেনের পরিমাণ ঘরেই পরীক্ষার উপায় দেশে ২৪ ঘণ্টায় রেকর্ড সংখ্যক আক্রান্ত, আরো ৮ মৃত্যু করোনা মোকাবিলায় বাংলাদেশের প্রশংসা করলেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী দেশে ৫৪৯ নতুন করোনা রোগী শনাক্ত, আরো ৩ মৃত্যু হাসপাতাল থেকে পালানো করোনা রোগীকে বাগান থেকে উদ্ধার চাঁদপুরে ২০০০ পরিবারের মাঝে ইফতার সামগ্রী বিতরণ চীনের ৪ বিশেষজ্ঞ ঢাকায় আসছেন ভেন্টিলেটর-সিসিইউ স্থাপনে ১৪শ` কোটি টাকার জরুরি প্রকল্প নির্দেশনা না মানায় গণস্বাস্থ্যের কিট গ্রহণ করিনি বাংলাদেশে ১৯ মের মধ্যে করোনা বিদায় নেবে ৯৭ শতাংশ চাকরির বয়স শিথিলের বিষয় ভাবছে সরকার মানসম্মত কোন ধাপ অতিক্রম করেনি গণস্বাস্থ্যের কিট প্রধানমন্ত্রীর অনুদানের টাকা পেলেন ১৫ চরমপন্থী
  • সোমবার   ০১ জুন ২০২০ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ১৮ ১৪২৭

  • || ০৮ শাওয়াল ১৪৪১

সর্বশেষ:
একবছরে পাঁচগুণ মুনাফা বেড়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের আমাজন বাঁচাতে লিওনার্দোর ৫০ মিলিয়ন ডলারের অনুদান ১৬২৬৩ ডায়াল করলেই মেসেজে প্রেসক্রিপশন পাঠাচ্ছেন ডাক্তার জোরশোরে চলছে রূপপুর পারমাণবিক প্রকল্পের কাজ
৭৩২

ভুতুড়ে শহরে ২২ বছর ধরে একা বাস করছেন তিনি

দৈনিক চাঁদপুর

প্রকাশিত: ৪ আগস্ট ২০১৯  

জনশূন্য এক শহর সেরো গোর্দো। যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ার এই শহরটি জনমানবহীন হওয়ায় লোকমুখে শহরটি পরিচিত ‘ভূতের শহর’ হিসেবে। অথচ এই শহরেই কি না ২২ বছর ধরে একাকী বাস করছেন রবার্ট লুইস ডেমারাইস নামের এক ব্যক্তি!
বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, আক্ষরিক অর্থেই জনশূন্য এ শহরে পরিবার ছেড়ে দুই দশকেরও বেশি সময় ধরে বাস করছেন ৭০ বছর বয়সী সাবেক স্কুলশিক্ষক ডেমারাইস। হারিয়ে যাওয়া রুপার খনির খোঁজে ‘ভুতুড়ে’ এ শহরে বাস করছেন তিনি।

শিক্ষকতা করার সময় মাঝে মাঝেই ছুটি কাটাতে দুর্গম এ শহরে যেতেন ডেমারাইস। কিন্তু একপর্যায়ে খনি সন্ধানের নেশা পেয়ে বসে তাকে। সে কারণে শহরের কোলাহল ছেড়ে পাহাড়বেষ্টিত এ শহরে একেবারেই বসতবাড়ি গেড়েছেন তিনি। শুরুতে সঙ্গে নিয়ে এসেছিলেন স্ত্রীকেও। কিন্তু সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে ৮ হাজার ২০০ ফুট উঁচু এ শহরে মানিয়ে নিতে পারেননি তার স্ত্রী। ফলাফল, শহরের একমাত্র বাসিন্দা এখন ডেমারাইসই।

স্প্যানিশ ভাষায় সেরো গোর্দো শব্দটির অর্থ দাঁড়ায় মোটা পাহাড়। অসংখ্য পাহাড়ে ঘেরা এ শহরটি অনেক আগে থেকেই রূপার মজুতের জন্য বিখ্যাত। এক সময় ক্যালিফোর্নিয়ার সবচেয়ে বেশি রূপা মিলত এ শহরেই। ডেমারাইসের দাবি, এ শহরের রুপা দিয়েই সমৃদ্ধ হয়েছে লস অ্যাঞ্জেলেস। আস্তে আস্তে বিলীন হতে থাকে এ শহরের রূপা। কিন্তু বেশ কয়েকবার ভ্রমণে গিয়ে ডেমারাইসের মনে হয়েছে, ভালোভাবে খুঁজলে এখনো এ শহরে রূপার অস্তিত্ব পাওয়া সম্ভব। আর সে কারণেই দীর্ঘ ২২ বছরে এখানে রূপার খোঁজ চালিয়ে যাচ্ছেন তিনি।

আশা পূরণ না হলেও একেবারে নিরাশও হতে হয়নি তাকে। অল্প সময়ের মধ্যেই বড় একটি রূপার খনির সন্ধান পাবেন বলেও আশাবাদী তিনি। ডেমারাইস বলেছেন, ‘আশা করছি খনিটির সন্ধান পেয়ে যাব। এই উদ্দেশ্যেই তো এখানে বাস করছি আমি। ২২ বছর ধরে এক ঠেলাগাড়ির সমান রূপা সংগ্রহ করেছি আমি।’

নির্জন এ শহরে থেকেই উপার্জনের ব্যবস্থা করে নিয়েছেন ডেমারাইস। সেরো গোর্দোতে ঘুরতে আসা পর্যটকদের কাছে ৫ থেকে ২০ ডলারে একেক টুকরো অপরিশোধিত রুপা বিক্রি করেন তিনি। ঘুরতে আসা পর্যটকদের গাইড হিসেবে শহরটি ঘুরিয়ে দেখানোর কাজও করে থাকেন তিনি। ঘুরিয়ে দেখানোর সময় ১৮৬৫ সালে প্রতিষ্ঠিত এ শহরের সুদীর্ঘ ইতিহাসও শোনান পর্যটকদের।

পাহাড়বেষ্টিত এ শহরে বিদ্যুৎ সংযোগ থাকলেও নেই পানির প্রাকৃতিক কোনো উৎস। যে কারণে কীলার নামের নিকটস্থ এক শহর থেকে লরি ভর্তি করে পানি আনতে হয় তাকে।

এত বছর ধরে শহরের আনাচে কানাচে খনি খুঁজে বেড়ানোর পর এবার মাটির নিচে গিয়ে রূপার খনি খুঁজতে চান তিনি। কিন্তু শহরটির বর্তমান মালিক যে দু’জন, সেই ব্রেন্ট আন্ডারউড ও জন বিয়ার এ প্রস্তাবে সম্মত হননি। গত বছরের জুলাইয়ে প্রায় ১৪ লাখ ডলার দিয়ে শহরটি কিনে নেন তারা। ডেমারাইসের মতো তারাও মনে করেন, এ শহরে হারানো রূপার খনি খুঁজে পাওয়া যেতে পারে। তবে মাটির নিচে রূপার খনি খুঁজতে যাওয়া ‘অত্যন্ত বিপজ্জনক’ বলে এ ব্যাপারে সম্মত হচ্ছেন না তারা।

বিবিসিকে দেয়া সাক্ষাৎকারে আন্ডারউড ও বিয়ার বলেছেন, ‘আমরা বিশ্বাস করি যে এক দিন এই শহরে হারানো রূপার খনি অবশ্যই খুঁজে পাওয়া যাবে। পাহাড়ঘেরা এই শহর থেকে অন্তত ৫০০ মিলিয়ন ডলার সমমূল্যের রূপা এরই মধ্যে আহরণ করা হয়ে গেছে। শোনা যায়, আরও ৫০০ মিলিয়ন সমমূল্যের রূপা এই শহরে লুকিয়ে আছে।’

দৈনিক চাঁদপুর
দৈনিক চাঁদপুর