ব্রেকিং:
উৎপাদন বৃদ্ধিতে একযোগে কাজ করার অঙ্গীকার করোনাকালে চূড়ান্ত এমপিওভুক্তির সুখবর পেল ১৬৩৩ স্কুল-কলেজ করোনা মোকাবেলায় বঙ্গবন্ধুর স্বাস্থ্যসেবা দর্শন বৈশ্বিক ক্রয়াদেশ পূরণে সক্ষম বাংলাদেশ ॥ শেখ হাসিনা মানুষের পাশে দাঁড়াচ্ছে মানুষ, দৃষ্টান্ত স্থাপন করে চলেছে করোনা পরীক্ষা হবে চার বেসরকারি হাসপাতালে ২০ হাজারের বেশি আইসোলেশন শয্যা প্রস্তুত রয়েছে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী করোনা আক্রান্তের শরীরের অক্সিজেনের পরিমাণ ঘরেই পরীক্ষার উপায় দেশে ২৪ ঘণ্টায় রেকর্ড সংখ্যক আক্রান্ত, আরো ৮ মৃত্যু করোনা মোকাবিলায় বাংলাদেশের প্রশংসা করলেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী দেশে ৫৪৯ নতুন করোনা রোগী শনাক্ত, আরো ৩ মৃত্যু হাসপাতাল থেকে পালানো করোনা রোগীকে বাগান থেকে উদ্ধার চাঁদপুরে ২০০০ পরিবারের মাঝে ইফতার সামগ্রী বিতরণ চীনের ৪ বিশেষজ্ঞ ঢাকায় আসছেন ভেন্টিলেটর-সিসিইউ স্থাপনে ১৪শ` কোটি টাকার জরুরি প্রকল্প নির্দেশনা না মানায় গণস্বাস্থ্যের কিট গ্রহণ করিনি বাংলাদেশে ১৯ মের মধ্যে করোনা বিদায় নেবে ৯৭ শতাংশ চাকরির বয়স শিথিলের বিষয় ভাবছে সরকার মানসম্মত কোন ধাপ অতিক্রম করেনি গণস্বাস্থ্যের কিট প্রধানমন্ত্রীর অনুদানের টাকা পেলেন ১৫ চরমপন্থী
  • বৃহস্পতিবার   ১৩ আগস্ট ২০২০ ||

  • শ্রাবণ ৩০ ১৪২৭

  • || ২৩ জ্বিলহজ্জ ১৪৪১

সর্বশেষ:
একবছরে পাঁচগুণ মুনাফা বেড়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের আমাজন বাঁচাতে লিওনার্দোর ৫০ মিলিয়ন ডলারের অনুদান ১৬২৬৩ ডায়াল করলেই মেসেজে প্রেসক্রিপশন পাঠাচ্ছেন ডাক্তার জোরশোরে চলছে রূপপুর পারমাণবিক প্রকল্পের কাজ
১৮৭

সামাজিক অবক্ষয় রোধে দিকনির্দেশনা দিলো শাহরাস্তি পুলিশ

দৈনিক চাঁদপুর

প্রকাশিত: ২৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯  

শাহরাস্তি মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ শাহ আলম। তিনি ১৯৬৭ সালের ৩১ ডিসেম্বর ব্রাক্ষ্মণবাড়িয়া জেলার বাঞ্চারামপুর থানার ফয়দাবাদ গ্রামের এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। ১৯৯২ সালের ৩১ ডিসেম্বর তিনি পুলিশ বাহিনীর এসআই পদে যোগদান করেন। তিনি ২০০৮ সালে ইন্সপেক্টর পদে পদোন্নতি পেয়ে নোয়াখালী জেলার বেগমগঞ্জ থানায় তদন্ত কর্মকর্তা হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। ২০১০ সালে পার্বত্য জেলা রাঙ্গামাটির রাজসতলী থানায় এবং ২০১২ সালে চাঁদপুর সদর থানা, পরে হাজীগঞ্জ থানায় ২০১৩ সাল থেকে ২০১৬ সাল, হাজীগঞ্জ থানা থেকে বদলি হয়ে ২০১৭ থেকে ২০১৮ সালের ১০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত তিনি ফরিদগঞ্জ থানায় কর্মরত ছিলেন। মোঃ শাহ আলম শাহরাস্তি মডেল থানায় ২৭তম অফিসার ইনচার্জ (ওসি) হিসেবে ২০১৮ সালের ১১ সেপ্টেম্বর থেকে কর্মরত আছেন। পুলিশ বাহিনীতে যোগদানের পূর্বে তিনি নিজ এলাকার একটি হাইস্কুলে কিছুকাল শিক্ষকতা পেশায়ও নিয়োজিত ছিলেন। তিনি এলএলবিও করেছেন। বাবা মরহুম আরু মিয়া ও মা আমেনা বেগমের ৭ ছেলে ১ মেয়ের মধ্যে তিনি পঞ্চম।

মোঃ শাহ আলম কর্মগুণে শাহরাস্তিবাসীর আস্থা ও বিশ্বাস অর্জন করেছেন।সাক্ষাৎকার নিয়েছেন মোঃ রুহুল আমিন। সাক্ষাৎকারটি আজ প্রকাশিত হলো।

প্রশ্ন : কী কারণে পেশা হিসেবে বাংলাদেশ পুলিশে যোগ দিলেন?

মোঃ শাহ আলম : ১৯৭৬ সালে আমার বড় ভাই পুলিশ বাহিনীতে এবং মেঝো ভাই বিডিআর-এ যোগদান করেন। এক সময় বড় ভাই পুলিশবাহিনী থেকে পালিয়ে বাড়ি চলে আসেন। বড় ভাই পুলিশ থেকে কেনো পালিয়ে এলেন_তাই জিদ চাপে পুলিশেই চাকুরি করবো।

প্রশ্ন : শাহরাস্তি উপজেলাকে কীভাবে মূল্যায়ন করবেন?

মোঃ শাহ আলম : দেশের অন্য এলাকার তুলনায় শাহরাস্তি উপজেলার মানুষ অনেক ভালো। সবচেয়ে বেশি ভালো লাগে এখানে রাজনৈতিক হানাহানি তুলনামূলকভাবে অন্য এলাকার চেয়ে অনেক কম। আমি এর একমাত্র কৃতিত্ব স্থানীয় এমপি মেজর (অবঃ) রফিকুল ইসলাম বীর উত্তম মহোদয়ের বলে মনে করি। তিনি অন্যায় কাজে কাউকেই ছাড় দেন না।

প্রশ্ন : সামাজিক অবক্ষয়কে কীভাবে দেখছেন?

মোঃ শাহ আলম : একটি সত্য কথা দুঃখের সাথে বলছি। যা কেউ সচরাচর বলতে চায় না বা বলে না। যারা সত্যকথা, ন্যায়ের কথা বলে তারা এখন মসজিদ বা স্কুল কমিটিতেও স্থান পায় না। খেয়াল করে দেখবেন অধিকাংশ মসজিদ কমিটিতেই টাউট-বাটপার ও অসৎ মানুষগুলো স্থান পাচ্ছে। সামাজিক এই অবক্ষয় থেকে মুক্তি না পেলে সমাজ কোথায় গিয়ে ঠেকবে তা বলতে পারছি না। সামাজিক অবক্ষয় থেকে মুক্তি পেতে ভালো মানুষদের এগিয়ে আসতে হবে।

প্রশ্ন : তরুণদের উদ্দেশে কী বলতে চান?

মোঃ শাহ আলম : সততার সাথে নিজের জীবন পরিচালিত করার মতো যোগ্যতা অর্জন করো, তৈরি হও। অসৎ মানুষের সাথে বন্ধুত্ব করবে না। সৎভাবে বেঁচে থাকার জন্যে মানসিকতা তৈরি করতে হবে।

প্রশ্ন: শাহরাস্তিবাসীর উদ্দেশ্যে কী বলবেন?

মোঃ শাহ আলম : শাহরাস্তিবাসীকে বলবো, মাদক ব্যবসায়ী ও মাদক সেবনকারীদের বিষয়ে কোনো তথ্য থাকলে সাথে সাথে আমার অথবা থানার নম্বরে জানিয়ে দিন। আমরা তাদের আইনের আওতায় নিয়ে আসবো। যৌতুক, ইভটিজিং ও বাল্যবিয়ে সামাজিক অপরাধ। এমন অপরাধে জড়িতদের বিষয়ে থানাকে অবহিত করুন। আমরা তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থাগ্রহণ করবো। একটি কথা না বললেই নয়। মোবাইল আসক্তির কারণে শাহরাস্তি থানায় প্রতিদিন গড়ে ১০টির অধিক বিয়ে ভেঙ্গে যাচ্ছে। মোবাইলের কারণে বিবাহিত নারী-পুরুষ পরকীয়ায় জড়িয়ে সংসারে অনেক অশান্তি সৃষ্টি করছে। আমি অনুরোধ করে বলছি, ১৮ বছরের আগে আপনার সন্তানের হাতে টার্চ মোবাইল দিবেন না।

প্রশ্ন : পেশা হিসেবে পুলিশকে কীভাবে মূল্যায়ন করবেন?

মোঃ শাহ আলম : স্বপ্ন ছিলো মানুষের উপকার করা যায় এমন পেশায় কাজ করবো। আর পুলিশের চাকুরিতে যোগ দিয়ে আমি তা করতে পেরেছি বলেই মনে করি। সেকারণে পুলিশের চাকুরিতে আমি শতভাগ তৃপ্ত।

উল্লেখ্য, ওসি মোঃ শাহ আলম একজন সদালাপি মানুষ। তিনি ২ পুত্র সন্তানের জনক। তার বড় ছেলে এইচএসসি ২য় বর্ষ এবং ছোট ছেলে নবম শ্রেণিতে অধ্যয়নরত। স্ত্রী খালেদা আক্তার সুমী একজন গৃহিণী।

দৈনিক চাঁদপুর
দৈনিক চাঁদপুর
চাঁদপুর বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর