ব্রেকিং:
চাঁদপুরে অসহায়দের জন্য সরকার যে ব্যতিক্রমী পদক্ষেপ নিয়েছে মতলব উত্তর থানার ওসি মিজানুর রহমানকে যে বিশেষ সম্মাননা দেয়া হলো চাঁদপুরে সুজিত রায় নন্দীর শোক চাঁদপুরে ওছমানিয়া মাদ্রাসার যেসকল উন্নয়ন কাজ হচ্ছে হাজীগঞ্জে সিনিয়র সচিব ড. শাহ কামালের বাবার দাফন সম্পন্ন যত্রতত্র বর্জ্যের কারণে এ কি হলো ফরিদগঞ্জের চাঁদপুরে পুলিশের ১৪শ` সদস্যের সাথে আর কারা যোগদান করলো শুকরের খামারের পাশে মর্গ! ‘দুর্নীতির বিরুদ্ধে অভিযান সারাদেশেই চলবে’ প্রমাণ পেলে সবার বিরুদ্ধেই ব্যবস্থা: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী হাজীগঞ্জ উপজেলার ইছাপুরা গ্রামে নেমেছে শোকের ছায়া ব্যতিক্রম ওসি! জানুন বিস্তারিত মতলবে খাদেরগাঁও বায়তুল ফালাহ জামে মসজিদের উদ্বোধন নারীদের যেভাবে দক্ষ হিসেবে গড়ে তুলতে হবে হাইমচরে উত্তর ইউনিয়ন কৃষকদলের সম্মেলন অনুষ্ঠিত চাঁদপুর মাছঘাটে এতো ইলিশ কোথা থেকে এলো আজ কমিউনিটি পুলিশিং সমন্বয় কমিটির সাথে পুলিশ সুপারের মতবিনিময় বাঘড়ায় জমজমাট এই ধরণের ব্যবসা, জানুন বিস্তারিত চাঁদপুরে যেভাবে রাজস্ব থেকে বঞ্চিত হচ্ছে সরকার বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবর্ষ উদযাপনে ফরিদগঞ্জে `বঙ্গবন্ধু উৎসব` শুরু

রোববার   ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯   আশ্বিন ৭ ১৪২৬   ২২ মুহররম ১৪৪১

দৈনিক চাঁদপুর
সর্বশেষ:
একবছরে পাঁচগুণ মুনাফা বেড়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের আমাজন বাঁচাতে লিওনার্দোর ৫০ মিলিয়ন ডলারের অনুদান রাজধানীতে চার জঙ্গি আটক ১৬২৬৩ ডায়াল করলেই মেসেজে প্রেসক্রিপশন পাঠাচ্ছেন ডাক্তার জোরশোরে চলছে রূপপুর পারমাণবিক প্রকল্পের কাজ
১৮৭২

হাজীগঞ্জ ডিগ্রি কলেজের অর্থায়নে উচ্চতর ডিগ্রি নিচ্ছে ১৫ শিক্ষার্থ

প্রকাশিত: ২৫ আগস্ট ২০১৯  

হাজীগঞ্জ ডিগ্রি কলেজের নিজস্ব ফান্ড ও শিক্ষকদের নিজস্ব অর্থ থেকে, অর্থাৎ যৌথ অর্থায়নে উচ্চতর ডিগ্রি নিচ্ছে উক্ত কলেজের সাবেক বহু শিক্ষার্থী। যারা নিতান্ত অসচ্ছল-গরিব, কিন্তু পড়ালেখায় প্রবল আগ্রহ রয়েছে এমন ছাত্রদের উচ্চতর ডিগ্রি অর্জনে সহায়ক হিসেবে এগিয়ে আসছে কলেজটি। বিশেষ করে উচ্চতর ডিগ্রির ভর্তি কোচিং, ভর্তি কিংবা ভর্তির পরে এককালীন টাকা দিচ্ছে এ কলেজ। 

আবার এইচএসসিতে ভর্তি হওয়ার পর যে সকল শিক্ষার্থী বই ক্রয়, কলেজের বেতন প্রদান কিংবা আনুষঙ্গিক শিক্ষাসামগ্রীর জন্যে পড়ালেখা বন্ধ হওয়ার উপক্রম হয়, সেই সকল শিক্ষার্থীর সকল দিক দিয়ে সহায়তা করছে কলেজ কর্তৃপক্ষ। এভাবে ভালো শিক্ষার্থীকে আরো ভালোভাবে তৈরি করতে কিংবা গরিব-অসচ্ছল শিক্ষার্থীকে উচ্চতর ডিগ্রি নিয়ে প্রতিষ্ঠা পাওয়ার ক্ষেত্রে বর্তমানে কাজ করছে কলেজটি।

কলেজ অফিসসূত্রে জানা যায়, বেশ ক' বছর ধরে উক্ত কলেজের মেধাবী অথচ গরিব ও অসচ্ছল শিক্ষার্থীদের মধ্যে যারা উচ্চতর ডিগ্রি মানে বুয়েট, সরকারি যে কোনো মেডিকেল কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি ইচ্ছুক তাদেরকে কোচিং করাচ্ছে কলেজ কর্তৃপক্ষ। আবার ওই সকল শিক্ষার্থী ওই প্রতিষ্ঠানে চান্স পেয়ে গেলে ভর্তির টাকাসহ ভর্তি পরবর্তী অনুদান প্রদান করছে কলেজ কর্তৃপক্ষ।

কলেজের অর্থায়নে বর্তমানে বেশ ক'জন শিক্ষার্থী দেশের নামকরা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে অধ্যয়নরত রয়েছে। বাবা নিখোঁজ থাকা পান্না আক্তার উপজেলার বেলচোঁ উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এসএসসিতে এ প্লাস পেয়ে উক্ত কলেজের এইচএসসিতে ভর্তি হয়। ২০১৯ সালের প্রকাশিত এইচএসসি পরীক্ষায় পান্না এ প্লাস পায়। বর্তমানে এ ছাত্রী
কলেজ ফান্ডের টাকায় কুমিল্লায় মেডিকেল ভর্তি কোচিং করছে। আর সে একবারে চান্স পাবে বলে কলেজ কর্তৃপক্ষ আশা করছেন।

২০১৮ শিক্ষা সালে প্রকাশিত এইচএসসি পরীক্ষার ফলাফলে এ প্লাস পায় রামগঞ্জের নাগমুদ থেকে আসা শিক্ষার্থী ফাতেহা শারমিন। বাবা হারা শারমিন কলেজ কর্তৃপক্ষের অর্থায়ন ও সহায়তায় বর্তমানে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইসলামিক স্টাডিজ বিষয়ে পড়ালেখা করছে।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, গরিব-অসচ্ছল আর মেধাবীদের শিক্ষা ব্যবস্থাপনায় কলেজটি এক দৃষ্টান্ত। বিশেষ করে এসএসসি পাসের পর এ কলেজে এইচএসসিতে ভর্তিকৃত গরিব-সচ্ছল কিন্তু মেধাবী শিক্ষার্থীদের জন্যে এইচএসসির ২ বছর সুযোগ করে দিচ্ছে কলেজ কর্তৃপক্ষ। এ সকল শিক্ষার্থীর দুই বছরের বই কিনে দেয়া, কোচিং ফি ফ্রি করে দেয়া, কাগজ-কলমসহ শিক্ষা উপকরণ কিনে দেয়া, কলেজ ফান্ড থেকে বৃত্তি প্রদান, একাডেমিক সকল পরীক্ষার ফি ফ্রি করে দেয়া এমনকি এইচএসসি পরীক্ষার ফরম পূরণের বোর্ড ফি কলেজ ফান্ড থেকে দেয়া হচ্ছে। শুধুমাত্র চলতি সেশনে এইচএসসির প্রথম বষের্র ৭০ জন শিক্ষার্থীকে ইতিমধ্যে পুরো সেট বই কিনে দিয়েছে কলেজ কর্তৃপক্ষ।

হাজীগঞ্জ ডিগ্রি কলেজটি বেশ কয়েক বছর ধরে শিক্ষার্থীদের জন্যে ব্যতিক্রমধর্মী কাজ করে আসছে। এর মধ্যে রুটিনমাফিক কাজ হলো শিক্ষার্থীদের স্কিল ডেভলপমেন্ট বিষয়ে ক্লাস নেয়া, সেশনভিত্তিক অভিভাবক সমাবেশ, বিতর্ক সংগঠনের নিয়মিত কার্যক্রম, ক্যারিয়ার ডেভলপমেন্ট ক্লাবের মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের ভবিষ্যৎ সম্পর্কে ধারণা দেয়া, রোভার স্কাউট, রেডক্রিসেন্ট, সাংস্কৃতিক সংগঠন 'উত্তরণের' নিয়মিত কার্যক্রম.
কচুয়ার ডুমুরিয়া থেকে আসা তানজিনা আক্তার নামের এক শিক্ষার্থী এসএসসিতে এ প্লাস নিয়ে ভর্তি হয় এই কলেজে। ভর্তির পর থেকে কেয়ার নেয়া, বই দেয়া, বেতন দেয়া, উপবৃত্তি দেয়াসহ তৎকালীন চাঁদপুরের জেলা প্রশাসক আব্দুস সবুর মন্ডল এককালীন ৪ লাখ টাকার অনুদান প্রদান করেন এ শিক্ষার্থীকে। ২০১৫ সালে উক্ত কলেজ থেকে এ প্লাস পেয়ে এইচএসসি পাস করে এই শিক্ষার্থী। বর্তমানে সে নোয়াখালী মেডিকেল কলেজে অধ্যয়নরত রয়েছে। 

এইচএসসিতে ২০১৮ সালে কুমিল্লা বোর্ডে বাণিজ্য বিভাগে একমাত্র এ প্লাস পাওয়া শিক্ষার্থী সুমাইয়া বিনতে আলম ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষায় ২৫তম স্থান অর্জন করে উচ্চতর ডিগ্রি নিচ্ছে। একই বিশ্ববিদ্যালয়ের কেমিস্ট্রিতে অধ্যয়নরত ফরিদগঞ্জের সৌরভ হোসেনকে ঢাবিতে ভর্তির সময় কলেজ কর্তৃপক্ষ এককালীন অনুদান দিয়েছে। এভাবে প্রায় ১৫ জন শিক্ষার্থী কলেজের অর্থায়নে উচ্চতর ডিগ্রি নিচ্ছে।

এক প্রতিক্রিয়ায় কলেজ অধ্যক্ষ মাসুদ আহমদ জানান, আমরা মেধাবী ও অসহায় শিক্ষার্থীদেরকে কলেজ ও শিক্ষক ফান্ড থেকে পড়ালেখা সংক্রান্ত সকল ধরনের সহায়তা করে থাকি। এমনকি যারা আমাদের শিক্ষার্থী কিন্তু সরকারি যে কোনো শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে উচ্চতর ডিগ্রি নেয়ার জন্যে চান্স পেয়েছে, কিন্তু অর্থনৈতিক সমস্যায় পড়ালেখা হচ্ছে না তাদেরকে আমাদের সাধ্যমতো সকল সহায়তা অতীতে করেছি, ভবিষ্যতেও করে যাবো।

দৈনিক চাঁদপুর
দৈনিক চাঁদপুর
এই বিভাগের আরো খবর