ব্রেকিং:
চাল আমদানি নিয়ন্ত্রণ করা হবে: অর্থমন্ত্রী ড্র করেও চ্যাম্পিয়ন জুভেন্টাস! শাহ আমানতে সোয়া ১১ কেজি সোনা উদ্ধার বাড়ল মোবাইল ব‌্যাংকিংয়ে লেনদেন সীমা পঞ্চম ধাপে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেলেন যারা আগামী ২৫-২৭ মে এর মধ্যে পদ্মা সেতুর ১৩তম স্প্যান বসানো হতে পারে সৌদি-আমিরাতের ৩০০ স্থাপনায় হুতিদের হামলার হুমকি লঞ্চের অগ্রিম টিকিট বিক্রি আজ শুরু ‘শিগগিরই যোগ্য সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত হবে’ একীভূত হচ্ছে ঘোড়াশাল ও পলাশ সার কারখানা মন্ত্রিসভায় রদবদল, স্বাস্থ্য থেকে তথ্য মন্ত্রণালয়ে ডা. মুরাদ দিনের চেয়ে রাতের চাঁদপুর আগের চাইতে অনেক নিরাপদ চাঁদপুর শহরের ফুটপাত ও রেলস্টেশন থেকে ছয়জন আটক! ২৪ ঘণ্টায় অজ্ঞান পার্টির ৬৫ সদস্যকে গ্রেফতার প্রাথমিকে শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষার নতুন সূচি আজ অফিস করবেন ওবায়দুল কাদের অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী হচ্ছেন স্কট মরিসন দক্ষ ডাক্তার-নার্সের অভাব রয়েছে: পররাষ্ট্রমন্ত্রী এমপিওভুক্ত হচ্ছেন ১০ হাজার ৮৫ শিক্ষক ধানে আগুন: খারাপ চোখে না দেখার আহ্বান কৃষিমন্ত্রীর

সোমবার   ২০ মে ২০১৯   জ্যৈষ্ঠ ৬ ১৪২৬   ১৫ রমজান ১৪৪০

দৈনিক চাঁদপুর
সর্বশেষ:
আজ ১৭ মে প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস। ১৯৮১ সালের এই দিনে প্রায় ছয় বছরের নির্বাসিত জীবন শেষে দেশে ফিরে আসেন তিনি। শেখ হাসিনার মতো রাষ্ট্রনায়ক পেয়ে আমরা ভাগ্যবান: পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন প্রয়োজনে ভর্তুকি দিয়ে বেশি দামে ধান কিনে হলেও কৃষককে ধানের ন্যায্যমূল্য নিশ্চিত করতে অর্থমন্ত্রী ও সংশ্লিষ্টদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন আওয়ামী লীগ প্রেসিডিয়াম সদস্য ও কেন্দ্রীয় ১৪ দলের মুখপাত্র মোহাম্মদ নাসিম। ফিরছে ফেসবুকে বন্ধ হয়ে যাওয়া গ্রুপগুলো ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনালের আগে বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের অধিনায়ক ও সংসদ সদস্য মাশরাফী বিন মোর্ত্তজাকে ফোন দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
১২

৭ম তারাবি: পঠিত আয়াত ও বিষয়বস্তুসমূহ

প্রকাশিত: ১২ মে ২০১৯  

আজ ৭ম তারাবিতে সূরা আনফালের ৫ম রুকু থেকে ১০ম রুকু (আয়াত ৪১-৭৫) পর্যন্ত এবং সূরা তাওবার ১ম রুকু থেকে ১২তম রুকু (আয়াত ১-৯৩) পর্যন্ত পড়া হবে। 

পারা হিসেবে আজ পড়া হবে ১০ম পারা। 

সূরা আনফাল : (৪১-৭৫): 
৫ম রুকু থেকে ১০ম রুকু পর্যন্ত (আয়াত ৪১-৭৫) যুদ্ধলব্ধ গনিমতের সম্পদ বণ্টনের নীতি প্রসঙ্গে আলোচিত হয়েছে। তারপর বদরযুদ্ধের ঘটনা ও শিক্ষা সম্পর্কে আলোকপাত করা হয়েছে। বদর যুদ্ধের পূর্ণাঙ্গ চিত্র তুলে ধরা হয়েছে। ঐতিহাসিক এ যুদ্ধে শয়তানের ভূমিকা এবং কাফেরদের ফেরেশতা কর্তৃক প্রহার প্রসঙ্গে বলা হয়েছে। যুদ্ধের জন্য আত্মিক বল ও রুহানি শক্তি অর্জনের ব্যাপারে উৎসাহিত করা হয়েছে। আল্লাহ তায়ালার সাহায্য লাভের জন্য যুদ্ধের ময়দানে অটল অবস্থান, বেশি বেশি আল্লাহর জিকির করা, আল্লাহ ও রাসূলের আনুগত্য, মতানৈক্য ও অহংকার পরিহার করা, ধৈর্য ধারণ করা, জাতীয় জীবনে উত্থান-পতনের মূলনীতি, বদরযুদ্ধের বন্দি সমস্যা ও সমাধান, আনসার, মুজাহির এবং মুজাহিদদের পুরস্কার ও মর্যাদা ইত্যাদি বিষয়ে আলোচনা করা হয়েছে।

আরো পড়ুন>>> ৬ষ্ঠ তারাবি: পঠিত আয়াত ও বিষয়বস্তুসমূহ 

সুরা তাওবা : (আয়াত ১-৯৩):
সূরা তাওবা মদিনায় অবতীর্ণ হয়েছে। এর রুকু সংখ্যা ১৬ ও আয়াত সংখ্যা ১২৯। আজ পড়া হবে ৯৩ নম্বর আয়াত পর্যন্ত।

সূরা তাওবার প্রথম শব্দ বারাআত, যার অর্থ মুক্ত ও নিঃসম্পর্ক হওয়া। নবম হিজরিতে রাসূলুল্লাহ (সা.) রোমানদের শায়েস্তা করার উদ্দেশ্যে বের হয়েছিলেন। ইতিহাসে যা গাজওয়ায়ে তাবুক নামে পরিচিত। সূরা তওবায় মৌলিকভাবে দুটি বিষয়ে আলোচনা করা হয়েছে ১. মুশরিক ও আহলে কিতাবদের বিরুদ্ধে যুদ্ধের বর্ণনা এবং ২. গাজওয়ায়ে তাবুকের প্রেক্ষাপটে মুনাফিকদের আসল পরিচয় প্রকাশ।

১ম রুকুতে (আয়াত ১-৬) জমিনে বিচরণ করা, হজের সময়ে আল্লাহর কৃত ঘোষণা, মুশরিকরা যদি মুসলমানদের কাছে আশ্রয় নেয় তাহলে কী করবে এসব বিষয়ে আলোচনা করা হয়েছে।

২য় রুকুতে (আয়াত ৭-১৬) ইহুদি ও মুশরিকদের ব্যাপারে আলোচনা করা হয়েছে। তারা চুক্তি ভঙ্গ করে ও বিশ্বাসঘাতকতা করে। এর পরিণাম অত্যন্ত ভয়াবহ।

৩য় রুকুতে (আয়াত ১৭-২৪) মুশরিকদের অপরাধ স্বীকার করা, আল্লাহর জন্য হিজরত করা, হাজিদের জন্য পানি সরবরাহ করা ইত্যাদি বিষয়ে আলোকপাত করা হয়েছে।

৪র্থ রুকুতে (আয়াত ২৫-২৯) হুনাইনের যুদ্ধ ও মুসলিমদের আত্মবিশ্বাস রাখা প্রসঙ্গে আলোচনা হয়েছে।

৫ম রুকুতে (আয়াত ৩০-৩৭) বলা হয়েছে উযায়েরকে (আ.) ইহুদিরা আল্লাহর পুত্র মনে করত। মারয়াম (আ.) ও ঈসা (আ.) সম্পর্কেও এ রুকুতে আলোচনা করা হয়েছে। আরো বলা হয়েছে যে, যারা সম্পদ জমা করবে তাদের পরিণাম অত্যন্ত ভয়াবহ হবে।

৬ষ্ঠ ও ৭ম রুকুতে (আয়াত ৩৮-৫৯) তাবুক যুদ্ধ সম্পর্কে আলোকপাত করা হয়েছে। ইতিহাসে যা গাজওয়ায়ে তাবুক নামে প্রসিদ্ধ। গাজওয়ায়ে তাবুক ছিলো ঈমানের কঠিন এক পরীক্ষা। একদিকে তীব্র গরম, অপরদিকে ক্ষুধা ও দারিদ্র্য। মুনাফিকদের দুর্বলতা ও গোপন দোষগুলো তাবুক যুদ্ধে উন্মোচিত হয়ে পড়ে।

৮ম রুকু থেকে ১০ম রুকু পর্যন্ত (আয়াত ৬০-৮০) তাবুকের যুদ্ধে মুনাফিকদের যেসব দোষ প্রকাশ পেয়েছিল মিথ্যা অজুহাত পেশ করা, হিলা-বাহনা পেশ করা, হাস্যকর আপত্তির কথা বলে নিজেদের জন্য যুদ্ধে অংশগ্রহণ না করার বাহানা, মুসলমানদের মাঝে অনিষ্ট ছড়ানো, মুসলমানদের বিরুদ্ধে হিংসা ও বিদ্বেষ পোষণ করা ও বিপদে আনন্দ প্রকাশ করা ইত্যাদি বিষয়ে আলোকপাত করা হয়েছে।

১১ ও ১২তম রুকু পর্যন্ত (আয়াত ৮১-৯৩) বলা হয়েছে কাফেরদের সঙ্গে মোনাফেকদের সাদৃশ্যের কথা, কওমে নুহ, আদ, সামুদ, কওমে ইব্রাহিম, আসহাবে মাদয়ান ও কওমে লুতের কথা বলা। তাদের অত্যন্ত ভয়াবহ পরিণাম হয়েছিল। এ থেকে আমাদের শিক্ষা গ্রহণ করতে হবে। 

দৈনিক চাঁদপুর
দৈনিক চাঁদপুর