ব্রেকিং:
দেশে করোনায় ৮২ পুলিশ সদস্যের মৃত্যু, আক্রান্ত ১৮ হাজার আয়কর দিতে হবে ৩০ তারিখের মধ্যে গ্রামীণ বিদ্যুৎ সুবিধা উন্নয়নে ২০০ মিলিয়ন ডলার ঋণ দেবে এডিবি দেশের নানা আয়োজনে ১৭-২৬ মার্চ যোগ দেবেন বিশ্ব নেতারা স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের ছবি ব্যবহার করে ফেসবুকে প্রতারণা উৎপাদন বৃদ্ধিতে একযোগে কাজ করার অঙ্গীকার করোনাকালে চূড়ান্ত এমপিওভুক্তির সুখবর পেল ১৬৩৩ স্কুল-কলেজ করোনা মোকাবেলায় বঙ্গবন্ধুর স্বাস্থ্যসেবা দর্শন বৈশ্বিক ক্রয়াদেশ পূরণে সক্ষম বাংলাদেশ ॥ শেখ হাসিনা মানুষের পাশে দাঁড়াচ্ছে মানুষ, দৃষ্টান্ত স্থাপন করে চলেছে করোনা পরীক্ষা হবে চার বেসরকারি হাসপাতালে ২০ হাজারের বেশি আইসোলেশন শয্যা প্রস্তুত রয়েছে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী করোনা আক্রান্তের শরীরের অক্সিজেনের পরিমাণ ঘরেই পরীক্ষার উপায় দেশে ২৪ ঘণ্টায় রেকর্ড সংখ্যক আক্রান্ত, আরো ৮ মৃত্যু করোনা মোকাবিলায় বাংলাদেশের প্রশংসা করলেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী দেশে ৫৪৯ নতুন করোনা রোগী শনাক্ত, আরো ৩ মৃত্যু হাসপাতাল থেকে পালানো করোনা রোগীকে বাগান থেকে উদ্ধার চাঁদপুরে ২০০০ পরিবারের মাঝে ইফতার সামগ্রী বিতরণ চীনের ৪ বিশেষজ্ঞ ঢাকায় আসছেন ভেন্টিলেটর-সিসিইউ স্থাপনে ১৪শ` কোটি টাকার জরুরি প্রকল্প
  • মঙ্গলবার ১৬ জুলাই ২০২৪ ||

  • শ্রাবণ ১ ১৪৩১

  • || ০৮ মুহররম ১৪৪৬

সর্বশেষ:
একবছরে পাঁচগুণ মুনাফা বেড়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের আমাজন বাঁচাতে লিওনার্দোর ৫০ মিলিয়ন ডলারের অনুদান ১৬২৬৩ ডায়াল করলেই মেসেজে প্রেসক্রিপশন পাঠাচ্ছেন ডাক্তার জোরশোরে চলছে রূপপুর পারমাণবিক প্রকল্পের কাজ

‘চাচা আপন প্রাণ বাঁচা’ নীতি অনুসরণ করছেন বিএনপি নেতারা!

দৈনিক চাঁদপুর

প্রকাশিত: ১ এপ্রিল ২০২০  

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে সরকার যখন নিরলসভাবে কাজ করছে, ঠিক তখনই ‘চাচা আপন প্রাণ বাঁচা’ নীতিতে রাজনীতি করছে বিএনপি। করোনা সংকটে জনগণের পাশে দাঁড়ানোর বদলে দলটির দায়িত্বশীল নেতারা নিজেদের সেফ রাখতে পালিয়ে বেড়াচ্ছেন। খোদ মির্জা ফখরুলের মতো শীর্ষ নেতাও হঠাৎ করে রাজনীতির দৃশ্যপট থেকে উধাও হয়ে গেছেন। দলের কর্মীদের বুড়ো আঙুল দেখিয়ে নিজেদের রক্ষা করতে ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন তারা।

বিভিন্ন সূত্র বলছে, ঘরে অবস্থান করার নীতি গ্রহণ করে জনগণের কাছ থেকে পালিয়ে বেড়াচ্ছেন বিএনপির শীর্ষ নেতারা। বিএনপির কোন নেতাকেই করোনা সংকটে জনগণের পাশে দাঁড়াতে দেখা যাচ্ছে না। নিজের প্রাণ বাঁচাতে যেন তারা নিজেদের আড়াল করে রেখেছেন। আবার অনেকে বলছেন, একাদশ সংসদ নির্বাচন ও ঢাকা সিটি নির্বাচনে ভোট না দেয়ায় জনগণের উপর প্রতিশোধ নিতেই এই পলায়নপর নীতি গ্রহণ করেছে বিএনপির হাইকমান্ড।

গোপন একটি সূত্রে জানা গেছে, বিএনপিতে চলছে সাংগঠনিক ‘কারফিউ’। করোনার দিনে নিজেদের নিরাপত্তাকে বেশি প্রাধান্য দিচ্ছেন দলটির নেতারা। কারণ দলটির শীর্ষ নেতারা বেশিরভাগই বয়স্ক। প্রাণের ভয়ে তারা জনগণের কাছে যাচ্ছেন না। যার কারণে দলীয়ভাবে খেটে খাওয়া মানুষের মাঝে ত্রাণ বিতরণও করছে না দলটি। ফলে এটি নিয়ে নানা মহলে চলছে সমালোচনা। ভোটের সময় জনগণের দ্বারে দ্বারে ঘুরতে পারলেও বিপদের দিনে দলটির নেতাদের দেখা না পাওয়ায় ক্ষুব্ধ সাধারণ মানুষ।

বিএনপি নেতাদের পলায়নপর নীতির বিষয়ে জানতে চাইলে দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমেদ বলেন, করোনা নিয়ে বেশ বেকায়দায় আছি। সবার জানি না, তবে আমি বেশকিছু দিন ধরে জ্বর-সর্দিতে আক্রান্ত। যার কারণে জনসম্মুখে যাচ্ছি না। দলীয়ভাবে ত্রাণ বিতরণের কথা শুনেছিলাম। তবে কবে দেয়া হবে, সেই বিষয়ে বিস্তারিত জানি না। আসলে বয়সের কারণে দলের সিনিয়র নেতারা ভয় পেয়ে বের হচ্ছেন না। নিজে বাঁচলে বাপের নাম। এটি নিয়ে রাজনীতি করার কোন সুযোগ নেই।

দৈনিক চাঁদপুর
দৈনিক চাঁদপুর